বাংলাদেশের ট্রেন ভারতে – বাংলাদেশ রেলওয়ের একটি বিশেষ ট্রেন ২ হাজার ২শ ৫৫ জন যাত্রী নিয়ে ভারতে গেছে। শনিবার বাংলাদেশ সময় সকাল ১০টার কিছু পর ২৪টি বগি নিয়ে বিশেষ ট্রেনটি চুয়াডাঙ্গার দর্শনা আন্তর্জাতিক স্টেশন দিয়ে ভারতে প্রবেশ করে। ভারতের মেদেনীপুরে মাওলা পাকের ওরশ শরীফে যোগ দিতে বাংলাদেশি বিশেষ একটি ট্রেন ভারতে গেছে বলে নিশ্চিত করেছেন দর্শনা আন্তর্জাতিক স্টেশনের ম্যানেজার মীর লিয়াকত আলি।

তিনি জানান, প্রতি বছর ৪ঠা ফাল্গুন বাংলাদেশের আন্জুমান-ই-কাদেরীয়ার অনুসারীরা ভারতের জোড়া মসজিদে মাওলা পাকের ওরশ শরীফে দিয়ে থাকেন। তাদেরকে বহনের জন্য বাংলাদেশ রেলওয়ে বিশেষ এ ট্রেনটি ব্যবস্থা করেন।ওরসে যাওয়া বাংলাদেশি নাগরিক টাঙ্গাইলের কাদের বক্স পরিবর্তন ডটকমকে জানান, প্রতি বছর তারা ভারতের মেদেনীপুরে জোড়া মসজিদে মাওলা পাকের ওরশ শরীফে যোগ দিয়ে থাকেন। এবার পীরের ১১৮তম ওরস। এবারের ওরসে যোগ দিতে ২২শ ৫৫ জন যাত্রী যাচ্ছেন। সকালে রাজবাড়ি স্টেশন থেকে বিশেষ ট্রেনটি যাত্রা শুরু করে। সকাল ১০টার পর দর্শনা স্টেশনে পৌঁছায়। সেখানে ট্রেনের যাত্রীদের কাস্টমস ও ইমিগ্রেশনের কাজ শেষ করা হয়। ট্রেনটি আগামী মঙ্গলবার ফের বাংলাদেশে ফিরবে বলে জানান দর্শনা আন্তর্জাতিক স্টেশন মাস্টার মীর লিয়াকত আলী।

## বগুড়ায় মোটরসাইকেল চালানো শিখতে গিয়ে প্রাণ গেলো কিশোরের: শনিবার দুপুর ২টার দিকে বগুড়ার শেরপুর উপজেলার গাড়ীদহ ইউনিয়নের মোমিনপুর টিলাবাড়ী এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে। নিহত পারভেজ উপজেলার গাড়ীদহ ইউনিয়নের মহিপুর মুন্সীপাড়ার শাহ আলমের ছেলে। আর আহত কিশোর একই এলাকার হাসান আলীর ছেলে বলে জানা গেছে।

শেরপুর থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) পুতুল মোহন্ত জানান , পারভেজ চালানো শিখতে বাবার মোটরসাইকেল নিয়ে বন্ধু আলী জাবেরের সঙ্গে বাড়ি থেকে বের হয়। স্থানীয় হাটগাড়ীসহ আশপাশের মাঠ এলাকায় মোটরসাইকেল চালাতে থাকে তারা। একপর্যায়ে মোমিনপুর টিলাবাড়ী এলাকায় পৌঁছালে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে মোটরসাইকেল খাদে পড়ে যায়। এতে ঘটনাস্থলেই পারভেজ নিহত হয়। এছাড়া গুরুতর আহত আলী জাবেরকে উদ্ধার করে প্রথমে শেরপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ও পরে বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ (শজিমেক) হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

Related Post