ভারতনিয়ন্ত্রিত কাশ্মীরে বিশেষায়িত বাহিনী সিআরপিএফের গাড়িবহরে ভয়াবহ জঙ্গি হামলার সন্দেহভাজন ‘মূলহোতা’ ও বোমা বিশেষজ্ঞ গাজী ওরফে কামরান নিহত হয়েছে। এর আগে পুলওয়ামায় বোমা হামলায় ভারতের সিআরপিএফের ৪৯ সদস্য নিহত হয়েছিল। এ নিয়ে সেনাঅভিযানে নামে ভারতীয় বাহিনী। নিহত কামরান জইশ-ই-মোহাম্মদের প্রধান মাসুদ আজহারের উপদেষ্টা ও সন্ত্রাসী গোষ্ঠীটির শীর্ষস্থানীয় কমান্ডার ছিল বলে জানিয়েছে ভারতীয় সংবাদমাধ্যম।

তবে ঘটনা এখানেই শেষ নয়, প্রাণ হাতে নিয়ে জঙ্গিদের উপর বড়সড় আঘাত হানার শপথ নিয়ে সেনাবাহিনী। এই পরিস্থিতিতে সতর্ক হল পাক সেনা। এ খবর দিয়েছে ভারতীয় গণমাধ্যম কলকাতা২৪। সেনাবাহিনী সূত্রে খবর, সীমান্তের ওপারে ক্রমশ জড়ো হচ্ছে পাকিস্তানি সেনার বিশাল বাহিনী। রাতভর পাক সেনার মধ্যে চূড়ান্ত তৎপরতা দেখা গিয়েছে বলে ভারতীয় সেনাবাহিনী সূত্রে খবর। এই মুহূর্তে সীমান্তে ঠিক কী পরিস্থিতি, তা নিয়ে প্রতিরক্ষা মন্ত্রককে বারবার আপডেট দিচ্ছে সেনা। ভারতীয় সেনা প্রত্যাঘাত আনতে পারে এমন আশঙ্কাতেই সীমান্ত সংলগ্ন এলাকা ঘিরে ফেলেছে পাক সেনা। শুধু তাই নয়, জঙ্গিদের আড়াল করতে সবরকম প্রচেষ্টাও চালাচ্ছে পাক সেনা। এমন খবরও পাওয়া গিয়েছে। সার্জিক্যাল স্ট্রাইকের কথা মাথায় রেখেই তাদের সীমান্তের কাছ থেকে সরিয়ে দেওয়া হচ্ছে বলে খবর। যাতে অতর্কিতে হামলা চালানো না যায়, তার জন্য জঙ্গিদের জনবহুল এলাকায় সরিয়ে নিয়ে যাওয়া হয়েছে।

সোমবার সকালে জইশ সংগঠনের শীর্ষ জঙ্গি কামরানের গোপন ডেরা উড়িয়ে দিয়েছে সেনা৷ তাতেই মারা গিয়েছে পুলওয়ামা হামলার মাস্টারমাইন্ড কামরান সহ দুই জঙ্গি৷ কামরানকে হত্যা করে পুলওয়ামার ৪০ জন শহিদ সেনার বদলা নিয়েছে ভারতীয় জওযানরা৷

সোমবার ভোর রাত থেকে সেনা ও জঙ্গির গুলির লড়াই চলছে পুলওয়ামার পিংলা গ্রামে৷ তাতে শহিদ হন এক মেজর সহ ভারতীয় সেনাবাহিনীর তিন জওয়ান৷ সেনার তরফে চলে চিরুনি তল্লাশি৷ এলাকায় লুকিয়ে রয়েছে পুলওয়ামার হামলার মাস্টারমাইন্ড কারমান৷ খবর পাওয়া মাত্র ভারতীয় সেনারা ওই এলাকা ঘিরে ফেলে৷ তাতেই আটকে পড়েছে কারমান সহ তিন জঙ্গি৷ সেনার দাবি, গুলির লড়াইয়ে মারা গিয়েছে কামরান৷

Related Post

Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •