জঙ্গল থেকে বেরিয়ে এলো- চাঁদপুরে একটি গ্রামের জঙ্গল থেকে বেরিয়ে এসেছে প্রায় ৩০০ বছর আগের পুরনো একটি মসজিদ। সদর উপজেলার রামপুর ইউনিয়নের ছোটসুন্দর গ্রামের তালুকদার বাড়ি এলাকায় জঙ্গল কেটে সাফ করার পর এ মসজিদটির সন্ধান পাওয়া যায়।

গতকাল বুধবার বিকালে পুরো জঙ্গলটি পরিষ্কার করার সময় এটি সবার নজরে আসে। স্থানীয়রা জানান, এলাকার প্রয়াত মুরব্বিরা জানিয়ে গিয়েছিলেন এখানে একটি পুরনো স্থাপনা আছে। কিন্তু কেউই সেখানে যেত না। কারণ এই মসজিদটির ওপরে একটি বিশাল আকারের গাছ ও তার শেকড়, বাঁশঝাড়, অন্যান্য লতাপাতা এর বাইরের অংশকে ঢেকে রেখেছিল।
পরে ওই বাড়ির আজিজ তালুকদার নামে একজন ১০-১২ বছর আগে গাছটি কেটে এটিকে দৃশ্যমান করার উদ্যোগ নেন। কিন্তু পরবর্তীতে কোনো কারণে তিনি আর আগ্রহ প্রকাশ করেননি।

স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান আল মামুন বলেন, এটি এতই ভেতরে ছিল যা সম্পূর্ণ দৃশ্যমান করা তার পক্ষে সম্ভব ছিল না। তবে সে সময়ে এটির খবর তিনি স্থানীয় লোকজনকে জানান। কিন্তু ভয়ে কেউ এ মসজিদটিকে দৃশ্যমান ও সংরক্ষণের উদ্যোগ নেননি।

পরবর্তীতে সাবেক পররাষ্ট্রমন্ত্রী ও চাঁদপুর-৩ আসনের সংসদ সদস্য এবং ওই ইউনিয়নের বাসিন্দা ডা. দীপু মনির উদ্যোগে মসজিদটি দৃশ্যমান করার ব্যবস্থা করা হয়।

তিনি বলেন, আমরা ধারণা করছি, প্রায় ৩০০ বছর আগে সুলতানি আমলে মসজিদটি নির্মিত হয়েছে। এক গম্বুজবিশিষ্ট মসজিদটির দেয়ালঘেঁষে চারপাশে ৪টি ছোট মেম্বার রয়েছে। পুরো মসজিদটি পোড়া ইট,বালি, চুনা দিয়ে নির্মিত হয়েছে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

চাঁদপুর সদর আসনের এমপি ডা. দীপু মনি বলেন, ৪-৫ বছর আগে আমি কোনো একটি বইতে আমাদের এলাকায় এমন একটি মসজিদ আছে সেটির খবরটি জেনেছিলাম। পরবর্তীতে স্থানীয় চেয়ারম্যানের মাধ্যমে মসজিদটি শনাক্ত করা সম্ভব হয়েছে।

লাল সাইনবোর্ড ঝোলানো হলো পুড়ে যাওয়া ৫ ভবনে

রাজধানীর চকবাজারের চুড়িহাট্টার আগুনে পুড়ে যাওয়া পাঁচটি ভবনে লাল-কালো কালিতে লেখা সাইনবোর্ড টাঙানো হয়েছে। শুক্রবার ভোরে সাইনবোর্ডগুলো টাঙান দমকল বাহিনীর কর্মকর্তারা।

সাইনবোর্ডে লেখা রয়েছে, ‘ঝুকিপূর্ণ ভবন। ভবনটি ব্যবহার না করার জন্য সবাইকে বিশেষভাবে অনুরোধ করা হলো’। চুড়িহাট্টার নন্দ কুমার দত্তের ১৮, ৬৩/২,৬৩/৩, ৬৪, ৬৫ নং ভবনে এ সাইনবোর্ড টাঙানো হয়েছে।

আজ শুক্রবার সকাল থেকে ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনের (ডিএসসিসি) ১১ সদস্যের কমিটি ও স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের ৫ সদস্যের কমিটি ভবনগুলো পরিদর্শন করার পর ভবনগুলোতে সাইনবোর্ড লাগিয়ে দেয়।

এসময় ডিএসসিসি তদন্ত কমিটির প্রধান প্রকৌশলী রেজাউল করিম বলেন, আগুনে ৫টি ভবন ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। এর মধ্যে তিনটি ভবন প্রাথমিকভাবে ব্যবহারের অনুপযোগী বলে মনে হয়েছে।
Add Image
কেমিক্যাল গোডাউন সরানোর বিষয়ে তিনি জানান, আবাসিক এলাকায় কেমিক্যাল গোডাউনের অনুমতি নেই। যে কোনো মূল্যে অতি দ্রুতই এসব এলাকার কেমিক্যাল গোডাউন সরিয়ে নেয়া হবে।

তদন্ত কমিটির সদস্য বুয়েটের পুর প্রকৌশল বিভাগের অধ্যাপক মেহেদী আহমেদ আনসারী সাংবাদিকদের বলেন, ‘ ভবনগুলো কতটা ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে এ বিষয়ে পরীক্ষা-নিরীক্ষা করা হবে। এক সপ্তাহ পর জানা যাবে, ভবনটি ব্যবহারের উপযোগী কিনা।’

এসময় তিনি ওয়াহেদ ম্যানশনের কথা উল্লেখ করে বলেন, নীচ তলা ও দ্বিতীয় তলা সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। বিম ও কলামগুলোও ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। তবে তিন-চার তলার বিম ও কলাম তেমন ক্ষতিগ্রস্ত হয়নি বলে জানান তিনি।

বুধবার রাতে পুরান ঢাকার চকবাজারের চুড়িহাট্টায় ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডের কারণ উদঘাটনসহ দুর্ঘটনার সার্বিক বিষয় তদন্তের জন্য ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশন (ডিএসসিসি) ১১ সদস্যের কমিটি গঠন করেছে।

এছাড়া সুরক্ষাসেবা বিভাগের অতিরিক্ত সচিব (অগ্নি অনুবিভাগ) প্রদীপ রঞ্জন চক্রবর্তীকে আহ্বায়ক করে পাঁচ সদস্যের আরেকটি কমিটি গঠন করেছে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়।এ কমিটিকে সাত দিনের মধ্যে রিপোর্ট দিতে বলা হয়েছে। ১২ সদস্যের একটি তদন্ত কমিটি গঠন করেছে শিল্প মন্ত্রণালয়।

অগ্নিকাণ্ডের কারণ অনুসন্ধান, ক্ষয়ক্ষতি নিরূপণ ও এমন অগ্নিকাণ্ড যেন আর না ঘটে সেই লক্ষ্যে সুপারিশ প্রদানের জন্য এসব তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে।

Related Post