ঢাকা থেকে চট্টগ্রাম হয়ে দুবাইগামী একটি বিমান ঘিরে রেখেছে পুলিশ। বিমানটি ছিনতাইয়ের চেষ্টার পরপরই সেটি ঘিরে ফেলে পুলিশ ও র‌্যাব। ভেতরে একজন সন্দেহভাজন অস্ত্রধারী পাইলটকে জিম্মি করে রেখেছে।

রোববার বিকালে বাংলাদেশ বিমানের ওই ফ্লাইটটি দুবাইয়ের উদ্দেশে ঢাকা ছেড়ে চট্টগ্রামের শাহ আমানত বিমানবন্দরে যায়।

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন সিভিল এভিয়েশন সচিব মহিবুল হক। তিনি জানান, বিমানটির মধ্যে সন্দেহভাজ এক ব্যক্তি ও দুইজন ক্রু রয়েছেন।

ঘটনার পরপরেই র‌্যাবের একাধিক গাড়ি বিমানবন্দরের মধ্যে প্রবেশ করেছে। বিমানবন্দরটি বর্তমানে বন্ধ রাখা হয়েছে। বিমানবন্দরে বাইরে উৎসুক জনতা ভীড় করছেন।

দ্রুত ফ্লাইটের সকল যাত্রীকে নামিয়ে দেওয়ার পর রানওয়েতেই অবস্থান করছে উড়োজাহাজটি। সেটি ঘিরে রেখেছে পুলিশ ও র‌্যাব। এরই মাঝে অভিযানে নেমেছে নৌ-কমান্ডো। ঘটনাস্থলে মোতায়েন করা হয়েছে ফায়ার সার্ভিসের চারটি ইউনিট।

উড়োজাহাজের ভেতরে একজন যাত্রীর হাতে আগ্নেয়াস্ত্র রয়েছে। তিনি বিদেশি কেউ একজন বলে এক যাত্রীর বরাতে জানিয়েছে দায়িত্বশীল সূত্র।

বিজি-১৪৭ নং ফ্লাইটটি ঢাকা থেকে চট্টগ্রাম হয়ে দুবাই যাওয়ার কথা ছিলো। ভেতরে একটি গুলির শব্দ শোনা গেছে। কেউ একজন তাতে আহত হতে পারেন বলেও ধারণা করা হচ্ছে।

সূত্রটি জানায়, প্রথমে কেবিন ক্রুদের একজন ওই বিদেশি ব্যক্তিকে দেখে সন্দেহ করলে পাইলটকে জানান। পাইলট কোনও ঝুঁকি না নিয়ে নিরাপত্তার স্বার্থে অবতরণ করার সিদ্ধান্ত নেন।

ফ্লাইটে ক্যাপ্টেন ও বেশিরভাগ যাত্রী নিরাপদে নেমে যেতে পারলেও একাধিক ক্যাবিন ক্রু জিম্মি রয়েছেন বলে জানায় সূত্রটি। একজন গুলিবিদ্ধ অবস্থায় বিমানের ভেতরেই রয়েছেন। অস্ত্রধারী নিজেও ভেতরে অবস্থান করছেন।

এদিকে রানওয়েতে বিমানটিকে ঘিরে রেখে আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী। র‌্যাব পুলিশ এপিবিএন সসদ্যরা রয়েছেন সেখানে।

বাইরে ফায়ার সার্ভিসের গাড়ি ও অ্যাম্বুলেন্স প্রস্তুত রাখা হয়েছে। বেসামরিক বিমান ও পর্যটন মন্ত্রণালয়ের সচিব মুহিবুল হক জানান, ভেতরে একজন কেবিন ক্রু ভেতরে রয়েছেন। কোনও গুলিবিদ্ধ হওয়ার খবর আমরা এখনো পাইনি।

বিমানবন্দরে সকল ফ্লাইট ওঠানামা বন্ধ রাখা হয়েছে বলে জানান একজন বিমান কর্মকর্তা।

Related Post