পূর্ব আফ্রিকার ‘গড’স কল’ নামক চার্চের খ্রিস্টান যাজক চার্লস ওকাওয়ানি ইসলাম গ্রহণ করেছেন। কেনিয়ার ‘ওহিয়ে এলাহি’ গির্জার স্থানে নবনির্মিত মসজিদ উদ্বোধনীর সময় তিনি ইসলাম ধর্ম গ্রহণের কথা ব্যক্ত করেন। তিনি ইসলামিক নামের সঙ্গে সামঞ্জস্য করার জন্য নিজের নাম পরিবর্তন করে ইসমাইল ওকাওয়ানি রেখেছেন।

ইসমাইল ওকাওয়ানি কেনিয়ার কিসি শহরের মুসলিম আলেম মুস্তফা সাউকার নিকটে নিজের হৃদয়ের বিশ্বাস ও অন্তরঙ্গ অনুভূতি ব্যক্ত করে কালিমায়ে শাহাদাত পাঠ করে ইসলাম গ্রহণ করেন।

কেনিয়ার ইরানী কালচারাল অ্যাটাশে জানিয়েছেন, দীর্ঘদিন যাবত ‘ওহিয়ে এলাহি’ নামক গির্জায় খ্রিষ্টানরা তাদের ইবাদত করতেন। পরবর্তীতে গির্জার ৬৫ জন খ্রিষ্টান ইসলাম গ্রহণ করেছেন ফলে গির্জা ভেঙ্গে সেখানে মসজিদ নির্মাণ করা হয়।

কেনিয়ার মুসলিম উম্মাহ কমিটির চেয়ারম্যান, কেনিয়ার কেইসুমু শহরের ‘কল ডেভেলপমেন্ট’ গ্রুপের প্রতিনিধি এবং তুরস্কের খাইরাত আল-বারাকার ফাউন্ডেশনের (কেনিয়ার) প্রতিনিধি শাইখ খালফান খামিসের আমন্ত্রণে পূর্বের গির্জার স্থানে নবনির্মিত মসজিদটি উদ্বোধন করেছেন।

এই মসজিদটি উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে নওমুসলিম ইসমাইল ওকাওয়ানি বলেন, বিশপ হিসাবে আমার মেয়াদকালে, আমি ঈশ্বরের বাণী প্রচারের জন্য কেনিয়ার মালিঙ্গি, মুম্বাস ও নাইরোবি শহর এবং তানজানিয়া ভ্রমণ করেছি।

ইসলাম গ্রহণের কারণ হিসেবে ইসমাইল ওকাওয়ানি বলেন, আমি এসব এলাকায় বসবাসরত খ্রিস্টান ও মুসলমানদের আচরণ সম্পর্কে অধ্যয়নের সুযোগ পেয়েছিলাম এবং এটি আমাকে এ সিদ্ধান্তে উপনীত করেছিল যে ইসলামই হচ্ছে সর্বোৎকৃষ্ট ধর্ম। আমি সে জন্য ইসলাম ধর্মের পতাকাতলে আশ্রয় নিয়েছি। আমি সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেছি, ইসলাম ধর্ম সম্পর্কে অধিক তথ্য ও গবেষণা করতে পৃথিবীর যেকোনো স্থানে যদি সফর করতে হয়, আমি সে স্থানে সফর করে ইসলাম সম্পর্কে জ্ঞান অর্জন করবো।

Related Post