মঙ্গলবার সকালে ভারতীয় বিমান বাহিনী নিয়ন্ত্রণ রেখা লঙ্ঘন করেছে বলে নিশ্চিত করেছেন পাক পররাষ্ট্রমন্ত্রী শাহ মাহমুদ কুরেশী। নিয়ন্ত্রণরেখা পেরিয়ে পাক অধিকৃত কাশ্মীরে সন্ত্রাসীদের বেশ কয়েকটি ঘাঁটি ও লঞ্চ প্যাডে হামলা চালিয়েছে ভারত। এতে অন্তত ৩০০ সন্ত্রাসী নিহত হয়েছে বলে দাবি করা হয়েছে।

মঙ্গলবার ভোর সাড়ে ৩ টার দিকে ১২টি মিরাজ ২০০০ যুদ্ধবিমান পাক জঙ্গি ঘাঁটি লক্ষ্য করে এক হাজার কেজি বোমা বর্ষণ করেছে। প্রথমবারের মতো পাকিস্তানের পক্ষ থেকে আনুষ্ঠানিকভাবে ওই হামলা সম্পর্কে বিবৃতি দেয়া হয়েছে। শাহ মাহমুদ কুরেশী বলেন, পাকিস্তান আগেই আভাস দিয়েছিল যে, ভারত এমন কিছু করবে।

তিনি বলেন, আমরা এর আগেই বিশ্বকে জানিয়েছি যে, ভারত এমন কিছু (পাকিস্তানে এয়ার স্ট্রাইক) করতে পারে। আজ তারা তা করে দেখিয়েছে। পাক অধিকৃত কাশ্মীরে ভারতীয় বিমান বাহিনীর হামলাকে নিয়ন্ত্রণ রেখা লঙ্ঘন হিসেবে উল্লেখ করেছে ইসলামাবাদ।

শাহ মাহমুদ কুরেশী বলেন, ভারতীয় বিমান বাহিনীর এই এয়ার স্ট্রাইকের পর এখন উপযুক্ত জবাব দেয়ার অধিকার রাখে পাকিস্তান। তিনি বলেন, উপযুক্ত জবাব দেয়ার অধিকার আছে আমাদের। আত্মরক্ষারও অধিকার রয়েছে আমাদের।

অপরদিকে, পুলওয়ামায় জঙ্গি হামলার জবাবে ভারতীয় বিমান বাহিনীর এই আকস্মিক হামলার পর জরুরি বৈঠক ডেকেছেন পাক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান। মঙ্গলবার সকাল ১১টার দিকে কাশ্মীর পরিস্থিতি নিয়ে আলোচনার জন্য দেশটির শীর্ষ পর্যায়ের কর্মকর্তাদের নিয়ে বৈঠকে বসেছেন তিনি।