ভারত-পাক অশান্তির পরিস্থিতি তৈরি হওয়ার পর থেকেই বারবার আক্রমণাত্মক কথা বলে আসছেন পাকিস্তানের রেলমন্ত্রী শেখ রসিদ আহমেদ। বুধবার তিনি বললেন, আগামী ৭২ ঘণ্টাই নাকি ঠিক করে দেবে যুদ্ধ হবে কিনা।

কলকাতা টুয়েন্টিফোর এক প্রতিবেদনে জানায়, এদিন সকাল থেকেই উত্তপ্ত হয়ে ওঠে ভারত-পাক সীমান্ত। পাকিস্তান ভারতের আকাশসীমা লঙ্ঘন করে প্রবেশ করার পর, সেই বিমানকে তাড়া করে ভারতের মিগ বিমান। ভারতীয় বায়ুসেনার এক পাইলট পাকিস্তানের হেফাজতে রয়েছে বলেও দাবি পাকিস্তানের।

এই পরিস্থিতিতে ওই পাক মন্ত্রী বলেন, আগামী ৭২ ঘণ্টা খুবই গুরুত্বপূর্ণ। আর যদি যুদ্ধ হয় তাহলে এটাই হবে দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের পর সবথেকে বড় যুদ্ধ। তিনি আরও বলেন, পাকিস্তান সম্পূর্ণভাবে তৈরি আছে, তাই যুদ্ধের আকার হতে পারে সংঘাতিক।

তিনি আরও বলেন, ‘পাকিস্তান প্রায় ওয়ার মোডেই রয়েছে। ইতিমধ্যেই রেলে জরুরি পরিস্থিতির সতর্কতা জারি করা হয়েছে। পাকিস্তানের দুনিয়া টিভিকে দেওয়া এক সাক্ষাত্‍কারে তিনি বলেন, আগামী ৭২ ঘণ্টাতেই ঠিক হয়ে যাবে যে যুদ্ধ না শান্তি।

এর আগে ট্যুইটারে একটি ভিডিও মেসেজ পোস্ট করেন তিনি। সেখানে বলেন, ‘কেউ যদি পাকিস্তানের দিকে কুনজরে দেখে, তাহলে সেই চোখ উপড়ে নেওয়া হবে। তাহলে আর গাছ জন্মাবে না, পাখিও ডাকবে, মন্দিরে বাজবে না ঘণ্টা।’

ভারতের সংবাদমাধ্যমকে জবাব দিয়ে ইনি বলেন, ‘ভারত যদি পাকিস্তানের হামলার এতটুকুও চেষ্টা করে, তাহলে পাকিস্তান কড়া জবাব দেবে।’ এমনকি ভারতের দিকে প্রয়োজনে মিসাইল ছোঁড়ার হুঁশিয়ারিও দেন তিনি। বলেন, ‘আমরা দিওয়ালির জন্য আমাদের বাজিগুলো জমিয়ে রাখিনি।’

উল্লেখ্য, গত ১৪ ফেব্রুয়ারি কাশ্মীরের পুলওয়ামায় ভারতের সেন্ট্রাল রির্জাভ ফোর্সের গাড়িবহরে চালানো আত্মঘাতী জঙ্গি হামলায় অন্তত ৪০ সদস্য নিহত হয়। এরপর থেকে দুই দেশের মধ্যে চরম উত্তেজনা বিরাজ করছে। এমন সংঘাতময় পরিস্থিতি নিরসনে দ্রুত কোনো পদক্ষেপ বা আলোচনায় না বসলে যেকোনো সময় যুদ্ধ বেঁধে যাওয়ার আশঙ্কা করছেন বিশ্লেষকরা।

Related Post