নিউজিল্যান্ডের ক্রাইস্টচার্চে আল নুর মসজিদসহ দুটি মসজিদে হামলার ঘটনায় নিহতের মধ্যে দুজন বাংলাদেশি রয়েছেন। অস্ট্রেলিয়ায় নিযুক্ত বাংলাদেশের হাইকমিশনার এম সুফিউর রহমান এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

যে দুজনের পরিচয় পাওয়া গেছে তারা হলেন- কৃষিবিদ ড. আবদুস সামাদ। তিনি ক্রাইস্টচার্চের লিংকন বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষকতা করতেন। বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক ছিলেন। আরেক বাংলাদেশি হলেন, মিসেস হোসনে আরা ছবি।

এছাড়াও কৃষিবিদ ড. আবদুস সামাদের স্ত্রীরও সন্ধান পাওয়া যায়নি এখন পর্যন্ত। এছাড়া চার পাঁচজন আহত হয়েছেন। এদের মধ্যে দুই জনের অবস্থা আশংকাজনক।

গুলিবিদ্ধ অবস্থায় আরও কয়েক জনকে হাসপাতালে নেয়া হয়েছে বলে খবর পাওয়া গেছে।

এর আগে শুক্রবার স্থানীয় সময় বেলা দেড়টার দিকে মসজিদে নামাজ শুরুর ১০ মিনিটের মধ্যে
অস্ট্রেলীয় বংশোদ্ভুত একজন খ্রিষ্টান বন্দুকধারী সিজদায় থাকা মুসল্লিদের ওপর গুলি ছুড়লে এই হতাহতের ঘটনা ঘটে। নিউ প্লাইমাউথে অনুষ্ঠিত এক সংবাদ সম্মেলনে প্রধানমন্ত্রী জেসিনডা আর্ডোন ক্রিস্টচার্চে হামলার ঘটনাকে নিউজিল্যান্ডের জন্য একটি অন্ধকার দিন উল্লেখ করে এই হামলাকে চরম এবং নজিরবিহীন সহিংসতা বলেছেন।

প্রসঙ্গত, যে মসজিদে সন্ত্রাসী হামলার ঘটনা ঘটেছে সেখানে নিউজিল্যান্ড সফররত বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের খেলোয়াড়রাও নামাজের জন্য যাচ্ছিলেন। মসজিদে প্রবেশের মুহূর্তে স্থানীয় একজন তাঁদের মসজিদে ঢুকতে নিষেধ করেন। বলেন, এখানে সন্ত্রাসী হামলা হয়েছে। আতঙ্কিত খেলোয়াড়েরা এ সময় দৌড়ে হ্যাগলি ওভালে ফেরত আসেন। খেলোয়াড়দের সবাইকে মাঠের ভেতর থাকতে বলা হয়েছে। এতে অল্পের জন্য রক্ষা পান বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দলের খেলোয়াড় তামিম-মুশফিকরা।

Related Post

Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •