পরমাণু নিরস্ত্রীকরণের বিষয়ে দ্বিপক্ষীয় প্রচেষ্টা শুরুর জন্য মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের প্রতি হুশিয়ার করে দিলো রাশিয়া। একইসঙ্গে সম্ভাব্য সীমিত পর্যায়ে পরমাণু যুদ্ধ সম্পর্কে জল্পনা ছড়ানো বন্ধের আহ্বান জানিয়েছে মস্কো। খবর পার্সটুডের।

দু’দেশ যখন স্নায়ুযুদ্ধের সময় সই হওয়া পরমাণু অস্ত্র নিয়ন্ত্রণ চুক্তি বাতিল করতে যাচ্ছে তখন রুশ পররাষ্ট্রমন্ত্রী সের্গেই ল্যাভরভ এ আহ্বান জানালেন।

জেনেভায় নিরস্ত্রীকরণ বিষয়ক এক সম্মেলনে বক্তৃতা দিতে গিয়ে ল্যাভরভ বলেন, ইন্টারমিডিয়েট-রেঞ্জ নিউক্লিয়ার ফোর্সেস ট্রিটি বা আইএনএফ নিয়ে দু’দেশের মধ্যকার চলমান অচলাবস্থা একথা পরিষ্কার করে দিয়েছে যে, অস্ত্র কমানোর বিষয়ে মস্কো এবং ওয়াশিংটনের মধ্যে যে কর্মপন্থা ছিল তা অকার্যকর হয়েছে এবং এখন এ প্রক্রিয়ায় আন্তর্জাতিক অংশগ্রহণ দরকার।

পরমাণু অস্ত্র নিয়ন্ত্রণ প্রক্রিয়ায় এখন অন্য দেশগুলোরও অংশ নেয়া প্রয়োজন। রুশ মন্ত্রী সতর্ক করে বলেন, অস্ত্র নিয়ন্ত্রণের জন্য রাশিয়া সব প্রস্তাব সামনে রাখছে তবে যদি সে প্রক্রিয়া ব্যর্থ হয় তাহলে সংশ্লিষ্ট পক্ষগুলোর মধ্যে উত্তেজনা বাড়বে এবং বিদ্যমান অস্ত্র নিয়ন্ত্রণ ব্যবস্থা অকার্যকর হয়ে পড়বে।

সম্প্রতি মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প আইএনএফ চুক্তিকে তিন মাসের জন্য স্থগিত করেছেন এবং তিনি বলেছেন, রাশিয়া তার ৯এম-৭২৯ ক্ষেপণাস্ত্র ধ্বংস না করলে আমেরিকা এ চুক্তি চিরদিনের জন্য বাতিল করবে। আমেরিকা বলছে, রাশিয়া আইএনএফ চুক্তি লঙ্ঘন করে ৯এম-৭২৯ ক্ষেপণাস্ত্র তৈরি করছে। তবে রাশিয়া সে অভিযোগ সম্পূর্ণভাবে অস্বীকার করছে।

এদিকে, ভারতে যদি আবারও কোনো সন্ত্রাসী হামলা হয়, তাহলে তা হলে তা পাকিস্তানের জন্য ‘অত্যন্ত সমস্যার’ কারণ হয়ে উঠতে পারে বলে হুশিয়ারি দিয়েছে হোয়াইট হাউস। পাশাপাশি এদিন অভ্যন্তরীণ সন্ত্রাসীদের বিরুদ্ধে কঠিন ব্যবস্থা গ্রহণ করার ব্যাপারে পাকিস্তানকে সতর্কও করেছে যুক্তরাষ্ট্র।

বুধবার হোয়াইট হাউসের সিনিয়র এক কর্মকর্তা সাংবাদিকদের জানান, জঙ্গি সংগঠনগুলোর বিরুদ্ধে পাকিস্তান কঠিন পদক্ষেপ গ্রহণ না করার ফলে যদি নতুন কোনও জঙ্গি সংগঠন তৈরি হয়, তাহলে তা দুই প্রতিবেশি দেশসহ সবার জন্যই চিন্তার কারণ হবে। যা কোনোভাবেই কাম্য নয়। এটা পাকিস্তানের জন্য ‘অত্যন্ত সমস্যার’ কারণ হয়ে উঠতে পারে।

Related Post

Leave A Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *