ঠিক এক সপ্তাহ আগে এই দিনে এই সময়ে শ্বেতাঙ্গ জঙ্গি ঘাতকের বন্দুকের নলে থমকে গিয়েছিল পুরো ক্রাইস্টচার্চ। আর এক সপ্তাহ পরে সেই ক্রাইস্টচার্চের আল নূর মসজিদের মুসল্লিদের ঢল। আবেগময় পুরো ক্রাইস্টচার্চ।

শুক্রবার (২২ মার্চ) হামলার পর প্রথম জুমার নামাজ আদায় করা হয় সেখানে। সেখানে হাজার হাজার মানুষ জুমার নামাজ আদায় করেন। শুধু মুসল্লি নয় শত শত অমুসলিমরাও সেখানে তাদের সাথে সংহতি জানাতে হাজির ছিলেন। মসজিদের পাশে হ্যাগলি পার্কেও মুসল্লি ছাড়িয়ে যায়। জুমার নামাজে অংশ নিতে বিভিন্ন দেশ থেকে বহু মুসলিম নিউ জিল্যান্ডে এসেছেন।

নিউ জিল্যান্ডের প্রধানমন্ত্রী জাসিন্দা আরডার্নসহ সরকারের উর্ধ্বতন কর্মকর্তাও সেখানে সংহতি প্রকাশ করেছেন। জুমার নামাজের আযান জাতীয়ভাবে সম্প্রচার করা হয়। দেখানো নামাজ আদায়ের দৃশ্যও। নামাজ পড়তে আসা লোকজনকে ভরসা দিতে মোতায়েন ছিল আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর বিপুল সদস্যা।

নামাজের আগে স্থানীয় সময় দুপুর ১টা ৩২ মিনিটে নিহতদের স্মরণে ২ মিনিটের নীবরতা পালন করা হয়। এরপর আল নুর মসজিদের ইমাম জামাল ফুদা কয়েক শ মুসল্লির উদ্দেশ্যে আবেগময় ভাষণ দিয়েছেন।

তিনি বলেছেন, ‘নিউ জিল্যান্ড ভাঙার নয়, আমাদের হৃদয় ভেঙে গেছে, কিন্তু আমরা ভেঙে যাইনি। আমরা সবাই এক। আমাদের দৃঢ় হতে হবে যে, কেউ আমাদের বিভক্ত করতে পারবে না।’

উল্লেখ্য, গত ১৫ মার্চ দুপুর ১টা ৪০ মিনিটে জুমার নামাজের সময় হামলা চালায় মুসলিম বিদ্বেষী উগ্র শ্বেতাঙ্গ জঙ্গি। প্রথমে আল নূর মসজিদে হামলা চালায় সে। পরে পার্শ্ববতী লিনউড মসজিদ হামলা চালায়। নৃশংস ওই হত্যাকাণ্ডের পুরো ঘটনা ফেসবুক লাইভে প্রচার করে হামলাকারী। ঘাতকের বুলেটে নিহত হন ৫ বাংলাদেশিসহ ৫০ জন। আহত হন আরও অর্ধশত।

এ ঘটনায় সেখানে অবস্থান করা বাংলাদেশ জাতীয় দলের ক্রিকেটাররা অল্পের জন্য প্রাণে বেঁচে গেছেন। তারা ওই মসজিদে নামাজ পড়তে যাচ্ছিলেন। তারা মসজিদে প্রবেশের মুহূর্তে এই হামলা চালানো। ক্রিকেটাররা রক্তাক্ত মরদেহ পড়ে থাকতে দেখতে পান। দৌঁড়ে সেখান থেকে নিরাপদে আশ্রয় নিয়ে প্রাণ বাঁচান।

নিউজল্যান্ডের পর এবার ইংল্যান্ড মসজিদে হামলা

যুক্তরাজ্যের বার্মিংহামের ওয়েস্ট মিডল্যান্ডে চারটি মসজিদে হাতুড়ি হামলা হয়েছে। মসজিদে হাতুড়ি নিয়ে অজ্ঞাত দুর্বৃত্তদের এই হামলায় কোনো হতাহতের ঘটনা ঘটেনি। তবে মসজিদে জানালা, দরজা ভাঙচুর করেছে অস্ত্রধারী অজ্ঞাত দুর্বৃত্তরা।

বুধবার গভীর রাতের এসব হামলার ঘটনায় আতঙ্ক দৈরি হয়েছে বার্মিংহামের মুসলিম সম্প্রদায়ের মাঝে। তারা শুক্রবারের জুমআর নামাজের সময় কড়া নিরাপত্তা ব্যবস্থা নেয়ার জন্য দেশটির পুলিশের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন।

দেশটির কাউন্টার টেরোরিজম পুলিশ বলছে, রাতে মসজিদে হামলা চালিয়ে ভাঙচুরের এসব ঘটনায় তদন্ত শুরু হয়েছে।

বৃহস্পতিবার ব্রিটিশ দৈনিক ডেইলি মেইল এক প্রতিবেদনে বলছে, রাতে উইটনের উইটন ইসলামিক সেন্টারে হামলা চালায় অজ্ঞাত দুর্বৃত্তরা। এতে মসজিদের সাতটি জানালা ও দুটি দরজা ভাঙচুর করা হয়।

মসজিদের ইমাম বলছেন, রাত দেড়টা থেকে ২ টার দিকে এই হামলার ঘটনা ঘটেছে। ওয়েস্ট মিডল্যান্ড পুলিশ বলছে, রাতে তারা হামলা হতে পারে বলে সতর্ক করে দিয়েছিলেন।

উল্লেখ্য, গত শুক্রবার (১৫ মার্চ) নিউজিল্যান্ডের ক্রাইস্টচার্চে মসজিদে হামলার ঘটনায় নিহত হয়েছেন ৫০ জন। এ ভয়াবহ ঘটনায় জড়িত ছিলেন চরম জাতীয়তাবাদী সন্ত্রাসবাদী চরমপন্থী খুনি ব্রেন্টন টারান্ট।

নিউজিল্যান্ডের দুটি মসজিদে নারকীয় সন্ত্রাসী হামলায় অর্ধশত মুসল্লি নিহত হওয়া ও ক্রমবর্ধমান ইসলামবিদ্বেষ নিয়ে ইসলামিক সহযোগিতা সংস্থা (ওআইসি) শুক্রবার তুরস্কের আহ্বানে জরুরি বৈঠকে বসতে যাচ্ছে।

বৃহস্পতিবার তুরস্কের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের এক বিবৃতিতে বলছে, ওআইসির সম্মেলনের সভাপতি হিসেবে তুরস্ক একটি জরুরি বৈঠক ডেকেছে। যাতে ক্রমবর্ধমান ইসলামবিদ্বেষ, বর্ণবাদ ও অভিবাসীভীতি নিয়ে আলোচনা হবে।

বৈঠকে সভাপতিত্ব করবেন তুরস্কের পররাষ্ট্রমন্ত্রী মেভলুট কাভুসগলু। বৈঠকে জাতিসংঘ, ইউরোপীয় ইউনিয়ন ও ইউরোপের নিরাপত্তা এবং সহযোগিতা সংস্থা ওএসসিইর প্রতিনিধির উপস্থিত হতে আমন্ত্রণ জানানো হয়েছে।

নিউজিল্যান্ডের ক্রাইস্টচার্চের আল নুর মসজিদ আগামীকাল শুক্রবার খোলা হবে। এদিন জুমার নামাজে হাজার হাজার মুসল্লি অংশ নেবেন বলে ব্রিটিশ দৈনিক গার্ডিয়ানের খবরে জানা গেছে।

আল নুর মসজিদের ইমাম জামাল ফাওদা বলেন, আমার ধারণা তিন থেকে চার হাজার মুসল্লি আগামীকাল শুক্রবার জুমায় অংশ নেবেন। তারা বিদেশ থেকে নিউজিল্যান্ডে আসছেন। মসজিদ বরাবর হ্যাগলি পার্কে এদিন জুমা অনুষ্ঠিত হতে পারে।

ইমাম আরও বলেন, মসজিদের কর্মীরা দিনরাত কাজ করে সেটিকে মেরামত করছেন। রক্তাক্ত কার্পেটগুলোকে কবর দেয়ার পরিকল্পনা করা হয়েছে।

এদিকে সন্ত্রাসী হামলায় নিহত অর্ধশত মুসল্লির সবাইকে শনাক্ত করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার দেশটির পুলিশের বরাতে বার্তা সংস্থা এএফপি এ খবর দিয়েছে।

পুলিশ কমিশনার মাইক বুশ বলেন, আমি বলতে পারি, কয়েক মিনিট আগে নিহত সবাইকে শনাক্ত করা হয়েছে। কাজেই দাফনের ব্যাপারে তাদের স্বজনদের বলা হয়েছে।

Related Post

Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Leave A Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *