আফ্রিকার ‘সুপার ঈগল’ বলা হয় নাইজেরিয়াকে। ফুটবল বিশ্বকাপে আফ্রিকান দলটিকে এই নামেই ডাকা হয়। ১৯৯৪ সাল থেকে এখন পর্যন্ত বিশ্বকাপ ফুটবলের ছয়টি আসরে ফুটবল-দ্যুতি দেখিয়েছে দলটি।

নওয়ানকো কানু, জে জে ওকোচা, জন ওবি মিকেলের মতো খেলোয়াড়রা নাইজেরিয়ার হয়ে আলো ছড়িয়েছেন, বিশ্বব্যাপী নাইজেরিয়াকে ফুটবল শক্তি হিসেবে জানান দিয়েছেন।

কিন্তু ক্রিকেটের কোনো বিশ্ব আসরে খেলতে পারে নাইজেরিয়া, এটা সম্ভবত কারো দূরতম কল্পনাতেও ছিল না। কিন্তু অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপের ২০২০ আসরে জায়গা করে নিয়ে সবাইকে চমকে দিয়েছে দলটি।

আফ্রিকা অঞ্চল থেকে ২০২০ সালের অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপের বাছাইপর্বের শেষ দিনে শনিবার সিয়েরা লিওনকে দুই উইকেটে হারিয়ে চূড়ান্তপর্বে জায়গা করে নিয়েছে নাইজেরিয়া।

প্রথমে ব্যাট করে ১৩৮ রানে সিয়েরা লিওনকে অলআউট করে দেয় নাইজেরিয়ানরা। ৩৬ বল হাতে রেখেই জয়ের বন্দরে পৌঁছে যায় তারা। ঐতিহাসিক জয় পেয়ে ক্রিকেটের কোনো বিশ্ব আসরে প্রথমবারের মতো জায়গা করে নেয় আফ্রিকার দেশটি।

নাইজেরিয়ায় ক্রিকেট নতুন নয়। বহু আগেই ব্রিটিশদের হাত ধরে ক্রিকেটে হাতেখড়ি দেশটির। ১৯০৪ সালে ঘানার বিপক্ষে প্রীতি ম্যাচও খেলেছিল নাইজেরিয়ানরা।

এরপর ফুটবলের উত্থানে ক্রিকেট আর সেভাবে বিকশিত হতে পারেনি সেখানে। তবে সম্প্রতি ক্রিকেটের প্রতি আগ্রহ বেড়েছে দেশটির। ২০০২ সালে আইসিসির সহযোগী দেশ হিসেবে সদস্যপদও পেয়েছে নাইজেরিয়া।

Related Post

Leave A Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *