পশ্চিম আফ্রিকার দেশ মালির মধ্যাঞ্চলে দুটি গ্রামে ২২ মার্চ শনিবার বন্দুকধারীদের গুলিতে কমপক্ষে ১৩৪ জন মুসলিম আদিবাসী নিহত হয়েছেন। নিহতরা ইসলাম ধর্মাবলম্বী ক্ষুদ্র আদিবাসী ফুলানি সম্প্রদায়ের মানুষ।

স্থানীয় একজন মেয়র রয়টার্সকে এ তথ্য জানিয়েছেন। এ ঘটনাকে গণহত্যা হিসেবে অভিহিত করেছেন ওই মেয়র। তিনি এই নৃশংস গণহত্যার তীব্র নিন্দা জানিয়েছেন।

ব্যাংকার্স শহরের মেয়র মৌলাই গুইন্ডো বলেন, ঐতিহ্যবাহী ডগন শিকারীদের পোশাক পরে ভোরে বন্দুকধারীরা হামলা চালায়। নিহতদের মধ্যে গর্ভবতী নারী, শিশু ও বৃদ্ধ রয়েছেন।

বন্দুকধারীদের প্রধান লক্ষ্য ছিল ফুলানি সম্প্রদায়ের মানুষ। এ সম্প্রদায়ের মানুষের জীবিকা নির্বাহের প্রধান মাধ্যম পশু পালন। মালিতে এমন সময়ে ফুলানি সম্প্রদায়ের মানুষের ওপর এ হামলার ঘটনা ঘটলো যখন ক্রমবর্ধমান জাতিগত বিদ্বেষের সমাধানে দেশটিতে অবস্থান করছিলেন জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদের কর্মকর্তারা।

উল্লেখ্য, নিউজিল্যান্ডের ক্রাইস্টচার্চে দুই মসজিদে ভয়াবহ সন্ত্রাসী হামলায় পাঁচ বাংলাদেশিসহ ৫০ জন নিহত হয়েছেন। আহত হয়েছেন প্রায় অর্ধশতাধিক। তবে অল্পের জন্য প্রাণে রক্ষা পেয়েছেন বাংলাদেশ ক্রিকেটাররা।

গেল ১৫ মার্চ শহরের মসজিদ আল নূর ও লিনউড মসজিদে নারকীয় হামলা চালান অস্ট্রেলীয় শেতাঙ্গ সন্ত্রাসী ব্রেনটন টেরেন্ট। বিশ্বব্যাপী এ নিয়ে বইছে নিন্দার ঝড়। নৃশংস হামলার সমালোচনায় মুখর গোটা বিশ্বের আপামর জনসাধারণ।

Related Post

Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •