ফুটবল বিশ্ব গত এক দশকের বেশি সময় ধরে রাজত্ব করে আসছেন তারা। নিঃসন্দেহেই লিওনেল মেসি এবং ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো একে অপরের চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী। দুজনের মধ্যে কে সেআ- তা নিয়ে ফুটবলবোদ্ধাদের বিতর্কের শেষ নেই। এবার দুই চিরশত্রু প্রায় কাছাকাছি সময়ে চোটে পড়লেন; সেটাও আবার জাতীয় দলের খেলা চলাকালে।

ভেনেজুয়েলা ম্যাচে ৯০ মিনিটে মাঠে থাকলেও কুচকির চোটের জন্য মরক্কোর বিপক্ষে ম্যাচে ছিটকে গেছেন লিওনেল মেসি। এবার ইউরো ২০২০ এর যোগ্যতা অর্জন পর্বে ম্যাচে সার্বিয়ার বিপক্ষে হ্যামস্ট্রিংয়ের চোট পেয়েছেন ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো। ম্যাচের ৩১তম মিনিটে চোট পেয়ে মাঠ ছাড়েন পর্তুগিজ সুপারস্টার। চোট গুরুতর হলে ২ সপ্তাহের জন্য মাঠের বাইরে ছিটকে যেতে পারেন তিনি।

মেডিকেল রিপোর্ট পাওয়ার পরই অবশ্য রোনালদোর চোট কতটা গুরুতর, জানা যাবে। তার আগে ক্রিশ্চিয়ানো অবশ্য ভক্তদের আশ্বস্ত করেছেন। সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে রোনালদো বলেন, ‘চোট নিয়ে আমি একেবারেই চিন্তিত নই, চোট আঘাত ফুটবলেই অংশ। এক সপ্তাহের মধ্যেই চোট সারিয়ে মাঠে নামার বিষয়ে আশাবাদী।’

ম্যাচে পিছিয়ে পড়া অবস্থায় সার্বিয়ার বিরুদ্ধে ড্র করে পর্তুগাল। এই নিয়ে যোগ্যাতা অর্জন পর্বের দুই ম্যাচেই পর্তুগিজরা পুরো পয়েন্ট তুলতে ব্যর্থ। প্রথম ম্যাচে ইউক্রেনের কাছে ০-০ গোলে রোনালদোরা আটকে গিয়েছিল। উল্লেখ্য ইউরো ২০২০র যোগ্যাতা অর্জন পর্বে ঘরের মাঠে দুই ম্যাচেই ড্র করল পর্তুগাল।

এপ্রিলের দ্বিতীয় সপ্তাহেই চ্যাম্পিয়ন্স লিগের কোয়ার্টার ফাইনাল পর্বে আয়াক্সের বিপক্ষে মাঠে নামছে জুভেন্তাস। চোট গুরুতর হলে সেই ম্যাচে রোনালদোকে হয়তো পাবে না জুভেন্তাস। উল্লেখ্য, চলতি ইতালিয়ান সিরি আল লিগে দুর্দান্ত খেলে যাচ্ছেন জুভেন্তাসের হয়ে প্রথম মৌসুম কাটানো রোনালদো।

Related Post

Leave A Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *