মুসলমানদের আবারও সেই সোনালী দিন ফিরে আসবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেছেন পাকিস্তানের কিংবদন্তি ক্রিকেটার শহীদ আফ্রিদি।

শনিবার আফ্রিদি এক টুইট বার্তায় তুর্কি সিরিজ দিরিলিস আরতুগুল নিয়ে তার মুগ্ধতার কথা বলতে গিয়ে তিনি এ আশাবাদ ব্যক্ত করেন।

তুরস্কের অন্যতম জনপ্রিয় সিরিজ দিরিলিস নিয়ে শনিবার আফ্রিদি তার ভেরিফায়েড টুইটার পেজে বলেন, ‘তুর্কি সিরিজ ‘দিরিলিস আরতুগুল’ দেখছি। আল্লাহর প্রতি বিশ্বাস ও ন্যায় বিচারের কারণে আরতুগুলের জীবনে বিজয় ও সফলতা আসে। হয়তোবা (মুসলমানদের)সেই সোনালী দিন আবারও আসবে।’

তুরস্কের টিভি সিরিজ সারা বিশ্বে ব্যাপক জনপ্রিয়তা পেয়েছে। বিশেষ করে মুসলিম বিশ্বে তুর্কি সিরিয়াল অপ্রতিদ্বন্দ্বী। সারা বিশ্বে দুই শতাধিক ভাষায় ডাবিং করে সম্প্রচারিত হচ্ছে এসব তুর্কি সিরিয়াল।

প্রসঙ্গত, বিশ্বব্যাপী টিভি সিরিজ রফতানিতে বিশ্বে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের পরের (দ্বিতীয়) অবস্থানেই রয়েছে তুরস্ক।

বাংলাদেশে দিরিলিস আরতুগুল: খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, মাছরাঙা টিভিতে ২ এপ্রিল ২০১৭ থেকে ‌দিরিলিস আরতুগ্রুল সিরিজ সম্প্রচার শুরু হয়। এই সিরিয়ালটি শুরু হওয়ার পর বাংলাদেশের বিভিন্ন শ্রেণির দর্শক মাছরাঙা টিভির প্রতি হুমড়ি খেয়ে পড়ে। এ সিরিজটি সম্প্রচারের পর থেকে তাদের টিআরপি অনেকাংশে বেড়ে গেছে বলে খবর পাওয়া গেছে।

ইতিমধ্যে প্রথম ও দ্বিতীয় সিজন দর্শকরা বাংলায় ডাবিং করা এ সিরিয়ালটি দেখেছেন। তৃতীয় সিজনের জন্য অপেক্ষা করছেন দর্শকরা।

ইউরোপে তুর্কি সিরিজের জনপ্রিয়তা

ইউরোপে তুর্কি চলচ্চিত্র র‌্যাংকিংয়ে প্রথম। আর তুরস্কের ৪৮ ভাগ মানুষই দেশীয় চলচ্চিত্র দেখে থাকেন। মধ্যপ্রাচ্য থেকে বলকান, পূর্ব ইউরোপ থেকে ল্যাটিন আমেরিকায় গত পাঁচ বছরে ব্যাপক জনপ্রিয়তা পেয়েছে তুর্কি সিরিজ।

এছাড়াও বিশ্বব্যাপী আলোচিত ১৬ শতাব্দীর অটোমান সাম্রাজ্যের ঐতিহাসিক কাহিনী নিয়ে নির্মিত সিরিজ দ্য ম্যাগনিফিসেন্ট সেঞ্চুরি (বাংলাদেশে যা সুলতান সোলেমান হিসেবে প্রচারিত হচ্ছে) ব্যাপক জনপ্রিয়তা পেয়েছে। এটি তুরস্ক ও পশ্চিম ইউরোপের ৭০টি দেশে সম্প্রচারিত হচ্ছে। এ সিরিজটির দর্শক সংখ্যা ২৫ কোটিরও বেশি।

তথ্যসূত্র: টুইটার,উইকিপিডিয়া, আনাদলু এজেন্সি

Related Post

Leave A Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *