রাখাইন রাজ্যে মিয়ানমার সেনাবাহিনীর হেলিকপ্টার হামলায় অন্তত ১০ রোহিঙ্গা মুসলমান নিহত হয়েছেন। এতে আরও একডজনের বেশি আহত হয়েছেন বলে রেডিও ফ্রি এশিয়ার খবরে বলা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার বৌদ্ধ বিদ্রোহী গোষ্ঠী আরাকান আর্মির সঙ্গে সরকারি বাহিনীর সংঘাতেরও বলি হলেন পৃথিবীর সবচেয়ে নিপীড়িত গোষ্ঠী রোহিঙ্গারা।

স্থানীয় অধিবাসীরা বলেন, বুথিডং শহরতলির ছেইদিন পাহাড়ি অঞ্চলে দুটি সশস্ত্র বাহিনীর মধ্যে লড়াইয়ে এসব রোহিঙ্গা হতাহত হয়েছেন।

সেনাবাহিনীর হেলিকপ্টার থেকে যখন বৃষ্টির মতো গুলি ছোড়া হচ্ছিল, রোহিঙ্গারা তখন ছেইদিনে বাঁশ সংগ্রহের কাজ করছিলেন।

হেলিকপ্টার হামলায় স্বজন হারিয়েছেন এমন একজন রোহিঙ্গা বলেন, অন্তত ১০ রোহিঙ্গা নিহত হয়েছেন। যেখানে হামলার ঘটনা ঘটেছে, সেখানে কোনো লোকজন কিংবা নৌকা যেতে পারে না। এ পর্যন্ত সাতজনের লাশ উদ্ধার করে গ্রামে নিয়ে আসা হয়েছে।

মিয়ানমার সেনাবাহিনীর ট্রু ইনফরমেশন টিমের ব্রিগেডিয়ার জো মিন টুন হামলার কথা নিশ্চিত করেছেন। তিনি বলেন, বুথিডং শহরতলি ও ইয়েই সো চুয়াং গ্রামে বৃহস্পতিবার মাঝ দুপুরে এ হামলার ঘটনা ঘটেছে।

আরাকান আর্মির মুখপাত্র খাইন থুকয়া বলেন, যেখানে হামলার ঘটনা ঘটেছে, সেখানে তারা সক্রিয় ছিলেন না। ওই এলাকায় তাদের সঙ্গে কোনো লড়াই হয়নি বলে তিনি জানিয়েছেন।

খাইন থুকয়া বলেন, মিয়ানমারের সেনাবাহিনী নিয়মিতভাবে কামান থেকে গোলাবর্ষণ ও বোমা হামলায় চালায়

Related Post

Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Leave A Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *