বিকৃত এক সন্তানের জন্ম দিয়েছেন মানসিক ভারসাম্যহীন এক প্রতিবন্ধী নারী। ভূমিষ্ঠ হওয়া শিশুটি দেখতে অনেকটা ব্যাঙের মতো। তবে জন্মের কিছুক্ষণ পরেই মারা যায় শিশুটি। সাতক্ষীরার কলারোয়া উপজেলার কাজিরহাট মাধ্যমিক বিদ্যালয় মাঠে শুক্রবার দুপুরে এ সন্তানের জন্ম দেন ওই মানসিক ভারসম্যহীন ওই নারী।

কাজিরহাট মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের পার্শ্ববর্তী এলাকার রুহুল আমিন জানান, মানসিক ভারসম্যহীন ওই নারী আজ দুপুরে হঠাৎ বিদ্যালয়ের মাঠের মধ্যে একটা অদ্ভুত শিশুর জন্ম দেয়। জন্মের কিছুক্ষণ পরই মারা যায় শিশুটি। এরপর এলাকার উৎসুক লোকজন শিশুটি দেখার জন্য ভিড় করতে থাকে। সকলের মুখে একটাই কথা, কে সেই নরপশু? যার কুকর্মের ফল বয়ে বেড়িয়েছে এই নারী। তবে সেই নরপশুকে খুঁজে বের করে শাস্তি চায় সবাই।

স্থানীয় কেরালকাতা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আলহাজ মো. আব্দুল হামিদ সরদার জাগো নিউজকে বলেন, দুপুরের পর কাজিরহাট মাধ্যমিক বিদ্যালয় মাঠে ওই নারী একটি সন্তানের জন্ম দেয়। জন্মের কিছুক্ষণ পরই সন্তানটি মারা যায়। তবে ভূমিষ্ঠ হওয়া শিশুটি বিকৃত আকৃতির। দেখতে মানুষের মতো না। অনেকটা ব্যাঙের মতো দেখতে। হাত-পা স্বাভাবিক থাকলেও গলার উপর থেকে বাচ্চাটি সম্পূর্ণরূপে অস্বাভাবিক।

তিনি আরও জানান, ওই প্রতিবন্ধী নারী কথাবার্তা ঠিকমতো বলতে পারে না। বাড়ির কোনো ঠিকানা নেই। তবে আঞ্চলিক ভাষা যশোর জেলার কেশবপুর উপজেলার বলে ধারণা করা হচ্ছে। ১০-১৫ দিন আগে কাজিরহাট এলাকায় আসেন তিনি। এরপর বিভিন্ন জায়গায় ঘুরে বেড়ায়। রাতে বন্ধ দোকানের সামনে ঘুমিয়ে থাকে। তার পরিচয় বের করার চেষ্টা করছি।

এ বিষয়ে কলারোয়া থানা পুলিশের অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মনিরুজ্জামান জাগো নিউজকে বলেন, ঘটনা জানার পর ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছে। যেহেতু ওই নারী আমার এলাকায় থাকে না। সেহেতু আমার এলাকার কেউ এমন জঘন্যতম কাজের সঙ্গে জড়িত রয়েছে বলে মনে হয় না।

তিনি আরও বলেন, শিশুটিকে ময়নাতদন্তের জন্য পাঠানো হবে।

Related Post

Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Leave A Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *