সাকিব সম্পর্কে সৌরভ গাঙ্গুলি একবার বলেছিলেন, শচীন টেন্ডুলকার কিংবা জ্যাক ক্যালিসের মত খেলোয়াড় ১০০ বছরে একবার জন্ম নেয়, আর সাকিব আল হাসানের মত খেলোয়াড় দশ হাজার বছরে একবার জন্ম নেয়…

২০১৫ বিশ্বকাপে যখন অস্ট্রেলিয়ার এক ছেলেকে প্রশ্ন করা হয় তুমি বড় হয়ে কোন ক্রিকেটারের মতো হতে চাও? উত্তরে সে তখন বলেছিলো আমি সাকিব আল হাসানের মতো হতে চাই। অস্ট্রেলিয়ার এতো বড় বড় তারকা থাকতে তার কাছে সাকিব আল হাসানকেই পছন্দ হয়েছে…

আফসোস, শুধু আমরা বাঙালীরাই জনমভর এই ছেলেটাকে অপছন্দ করে গেলাম। বাংলাদেশকে উজার করে দেওয়া এই ছেলেটাকে আমরা কখনোই চিনতে পারলাম না…সাকিব বেয়াদব, সাকিব অহংকারী, সাকিবের বউ পর্দা করে না, সাকিব দেশের জন্য খেলে না নিজের জন্য খেলে।

আইপিএলে সাকিব

আমরা ভুলে গেছি ২০০৭ বিশ্বকাপ, ২০১২ এশিয়া কাপ, ২০১১ বিশ্বকাপ, ২০১৫ বিশ্বকাপ, ২০১৭ চাম্পিয়ন ট্রফি, আমরা ভুলে গেছি নিদাহাস ট্রফিতে এই বেয়াদব ছেলেটা বেয়াদবী করেই বাংলার ১৮ কোটি মানুষকে জয়ের আনন্দে ভাসিয়েছিল…

আমরা অতীত ভুলে যাবো, বারবার ভুলে যাবো, দিনশেষে শুধু মনে রাখবো সাকিব বেয়াদব, সাকিব অহংকারী, সাকিবের বউ পর্দা করে না।

যেদিন সাকিব নামক বেয়াদবটা আর মাঠে নামবে না, দেখা যাবে না রঙিন কিংবা সাদাকালো জার্সিতে মাঠ কাঁপাতে, সেদিন অতীত ভুলে যাওয়া এই আমরাই মুড়ি চানাচুর খেতে খেতে নাতি নাতনিদের গল্প শোনাবো, আমাদের একটা বেয়াদব ছিল রে, বাংলাদেশের মত ছোট একটা দেশে থেকেও বিশ্ব ক্রিকেটে রাজ করতো ছেলেটা….

Related Post

Leave A Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *