রংপুরে জঘন্য ভাবে কমলমতি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের শাস্তি দেয়ার অভিযোগ উঠেছে এক শিক্ষকের বিরুদ্ধে। ঘৃণ্য কায়দায় দিনের পর দিন এমন শাস্তি পেয়ে স্কুলে যেতেই অনীহা সৃষ্টি হয়েছে শিক্ষার্থীদের মধ্যে। অবশেষে ওই স্কুলে বিক্ষোভ করেছেন ওই বিদ্যালয়ের কমলমতি শিক্ষার্থী ও এলাকাবাসী।

শিক্ষার্থী ও এলাকাবাসীরা শুধুমাত্র একজন শিক্ষকের বিরুদ্ধে বিক্ষোভ করছেন। অভিযুক্ত ওই শিক্ষকের শাস্তি দেয়ার কায়দা এতটাই অমানবিক যে, স্কুলে আসতেই ভয় পায় ছোট্ট শিশু শিক্ষার্থীরা। জানা গেছে, অভিযুক্ত ওই শিক্ষকের নাম জামাল উদ্দিন। ওই বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা জানান, স্কুলে না যাওয়া থেকে শুরু করে তুচ্ছ কিছু কিছু কারণে জামাল স্যার আরেক জনের থুথু খাওয়ায়। এ বিষয়ে শিক্ষার্থীদের অভিভাবকরা জানান, শিক্ষক জামাল শিশু বাচ্চাদের থুথু খাওয়ায় এই কারণে তারা স্কুলে যেতে চায় না। স্কুলে যেতে প্রচণ্ড অনীহা সৃষ্টি হয়েছে তাদের মাঝে।

বুধবার (৩ এপ্রিল) আবারও ৫ম শ্রেণির এক শিক্ষার্থীকে এমন শাস্তি দেন জামাল উদ্দিন স্যার। এ ঘটনার প্রতিবাদে আজ বৃহস্পতিবার (৪ এপ্রিল) সকালে থেকে স্কুল প্রাঙ্গণে বিক্ষোভ করেন শিক্ষার্থী ও এলাকাবাসী। এদিকে অভিযুক্ত শিক্ষক এ বিষয়টি অস্বীকার করে ক্ষমা চেয়েছেন। তিনি বলেন, ‘এটা মিথ্যা কথা। এমন কিছু করি নাই। তবে আমার অপরাধ হয়ে থাকলে ক্ষমা করে দেবেন।’ উপজেলা শিক্ষা অফিসার জানিয়েছেন, বিষয়টি খতিয়ে দেখে ব্যবস্থা নেয়ার। জানা গেছে, রংপুরের ‘হারাগাছ চতুরা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়’ এর শিক্ষার্থীর সংখ্যা ১৬৮ জন।

Related Post

Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •