যাত্রী নিয়ে যাচ্ছেন আলীফ হোসেন ও সাহাবুদ্দিন। এবার তারা দুজনই এসএসসি পরীক্ষা দিয়েছে। ভ্যান চালিয়ে নিজ নিজ সংসার চালান তারা।

সাহাবুদ্দিনের তিন সদস্যের পরিবার। তার সংসারে এক মাত্র আয়ের উৎসকারী সাহাবুদ্দিন। পড়ালেখার পাশাপাশি সাহাবুদ্দিনকে রোজগার করতে হয়।

সাহাবুদ্দিন আড়ানী পৌরসভার ৪ নম্বর ওয়ার্ডের নুরনগর খয়েরমিল গ্রামের বসবাস করে। তার বাবা ছইরুদদ্দিন। তার বাড়ির ভিটা নেই। নুরনগর আবাসনে বসবাস করে। সাহাবুদ্দিনের বাবা শারীরিক অসুস্থতার কারণে কাজ করতে পারে না। তাই সাহাবুদ্দিনকে সংসারের হাল ধরতে হয়েছে।

সোমবার দুপুরে সাহাবুদ্দিনের সঙ্গে আড়ানী-বাগাতিপাড়া সড়কের আড়ানীর ভাঙা সাঁকো এলাকায় কথা হলে তিনি জানান, পরীক্ষা দিয়েছি। সামনে ফলাফল প্রকাশ হবে। ফলাফলে কী হবে, জানি না। আশা করছি ফলাফল ভালো হবে।

অপর দিকে উপজেলার আড়ানী পৌরসভার ৪ নম্বর ওয়ার্ডের নুরনগর খয়েরমিল গ্রামের আখ ক্রয় কেন্দ্রের পেছনে বাবা, মা ও ছোট বোন নিয়ে বসবাস করেন আলীফ হোসেন। তার বাবা আমিরুল ইসলাম। তার বাড়ির ভিটাছাড়া কোনো জমি নেই।

আলিফ হোসেনের বাবা অসুস্থতার কারণে কাজ করতে পারে না। ফলে তাকেও সংসারের হাল ধরতে হয়েছে।

আলীফের সঙ্গে আড়ানী স্টেশন বাজার এলাকায় কথা হয়। তিনি জানান, পড়ালেখা করতে ভালো লাগে। শত কষ্ট করে পড়ালেখা শেষ করতে চাই। বাবার আড়াই কাঠা ক্রয় করা জমির ওপর বাড়ি। এক ঘরে আমি ও অন্য ঘরে বাবা-মা ও ছোট বোন থাকে। বাবার শরীরটা ভালো না। সংসারে আমি যা রোজগার করি তা দিয়ে সংসার চলে। পাশাপাশি লেখাপড়া করছি।

তিনি জানান, আড়ানী স্টেশন বাজরে কয়েকটি কাপ নিয়ে মা চা বিক্রি করে। এখানকার কিছু আয় থেকে ও আমার রোজগারের ওপর সংসার চলে। তবে কেউ আর্থিকভাবে সহযোগিতা করলে ভ্যান চালানো বাদ দিয়ে মায়ের চা এর দোকান বড় করলে আর ভ্যান চালানো লাগত না। তবে শত কষ্ট করেও লেখাপড়া চালিয়ে যাচ্ছি। অভাব-অনটনের কারণে ঠিকমতো ক্লাস করতে পারেনি। তবে পরীক্ষা শেষ করেছি। আশা করছি পরীক্ষা ফলাফল ভালো হবে।

তারা দুজনই নাটোরের বাগাতিপাড়া উপজেলার তকিনগর আইডিয়াল হাইস্কুল অ্যান্ড কলেজের ছাত্র।

অধ্যক্ষ মকবুল হোসেন বলেন, সাহাবুদ্দিন ও আলিফ হোসেন নম্র ও বিনয়ী। তারা দুজনই লেখাপড়ার পাশাপাশি ভ্যান চালায়। ছাত্র হিসেবে তারা ভালো।

আড়ানী পৌরসভার ৪ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর মোজাম্মেল হক রাজ বলেন, সাহাবুদ্দিন ও আলিফ হোসেনের পরিবারকে পৌরসভা থেকে সহযোগিতা করার সাধ্যমতো চেষ্টা করি।

Related Post

Leave A Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *