খালেদা জিয়ার সাথে স্বেচ্ছায় কারাবন্দি গৃহপরিচারিকা ফাতেমার দুই সন্তান ও পরিবারের সাক্ষাৎ নেই এক বছর দুই মাস। কিন্তু এ নিয়ে অভিযোগ নেই ফাতেমার মা রোকেয়া বেগমের।

তিনি বলেন, প্রতি মাসের শেষে ৬ হাজার করে টাকা পাঠায়। আমি নিজে অথবা তার মেয়ে (জাকিয়া) কাঠিয়া ইউনিয়নের হাটখোলা, পরানগঞ্জ বাজারে গিয়ে টাকা আনি। তবে কে বা কারা টাকা পাঠায় এ ব্যপারে আমি জানি না।

তিনি আরো জানান, ফাতেমার মেয়ে জাকিয়া ৭ম শ্রেণি এবং ছেলে মিজান ৩য় শ্রেণিতে পড়াশুনা করছে। তারা নিয়মিত স্কুলে যাচ্ছে। টাকার অভাবে তাদের পড়াশুনার কোনো ক্ষতি হচ্ছে না। বিএনপির পক্ষ থেকে ফাতেমার সন্তানদের কোনো খোঁজ খবর নেওয়া হচ্ছে কিনা জানতে চাইলে রোকেয়া বলেন, জ্বী নিয়মিতই খোঁজ খবর নেয়। টাকা ও দেয়।

দীর্ঘ দিন বেতন না পাওয়ায় ফাতেমার পরিবার মানবেতর জীবনযাপন করছে। গত ১৩ মাসে পরিবারের দেনা হয়েছে লাখ খানেক টাকা। অভাবের কারনে সন্তান দুটিকে স্কুল থেকে মাদ্রাসায় ভর্তি করা হয়েছে। বেসরকারি টেলিভিশনে দেওয়া এক সাক্ষৎকারে বাবা রফিকুল ইসলামের এমন দাবি সম্পূর্ণ মিথ্যা বলে জানিয়েছেন ফাতেমার মা রোকেয়া।

বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, ফাতেমার বাবা কয়েকদিন আগেও আমার কাছে এসেছিলো, আমি তাকে টাকা দিয়েছি। এছাড়া চেয়ারপারসনের বাসভবনে দায়িত্বপ্রাপ্তরা প্রতিমাসে তার বেতন দিয়ে দেন এবং খোঁজখবর নেন।

সূত্র : আমাদেরসময়.কম

Related Post

Leave A Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *