চুয়াডাঙ্গা জেলার দামুড়হুদা উপজেলার ইব্রাহীমপুর গ্রামের কলেজ ছাত্র রাজিব ফেসবুকে স্ট্যাটাস দিয়ে আত্মহত্যা করেছেন। বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় নিজের প্রোফাইলে স্টাটাসের পর বিষপান করে বেছে নেন আত্মহননের পথ।
রাজিব ইব্রাহীমপুর গ্রামের মনির উদ্দীনের ছেলে। তিনি দামুড়হুদা ওদুদশাহ ডিগ্রি কলেজে পড়তেন। চলমান এইচএসসি’র পরীক্ষার্থী ছিলেন রাজিব। বৃহস্পতিবার রাতে চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান ১৮ বছর বয়সী এই শিক্ষার্থী।
রাজীবের পরিবার জানায়, বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে পরিবার, বন্ধু, আত্মীয়-স্বজন, ভাই-ভাবিসহ সবার কাছে বিদায় জানান। পোস্টটি তার বড় ভাই দেখামাত্রই বাড়িতে ফোন করেন। কিন্তু তার আগেই বিষ পান করেন রাজীব। তাকে মুমূর্ষু অবস্থায় চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে নেওয়া হয়। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় রাত ৮টার দিকে মারা যান তিনি।

রাজীবের ফেসবুকে শেষ স্ট্যাটাসটি হুবুহু তুলে দেয়া হলো-
এটা আমার লাইফের শেষ স্টাটাস এটা জানি কথা গুলো শোনার পর অনেকে মানতে পারবে না, আবার অনেকের কাছে ভালো লাগবে শুনে। কিন্তু এটাই হয়ে গেছে সময়ের কাছে বাস্তবতার কাছে আমি হেরে গেলাম খুব ইচ্ছে ছিলো আর দশ জনের মতো স্বাভাবিক ভাবে জিবন চলানোর কিন্তু পারলাম না, ডিশিসন টা আমি খুব সহজ ভাবে নেই নাই আমাকে বাধ্য হয়ে নিতে হইছে ডিপ্রেশন আমাকে শেষ করে দিছে মেন্টালি ফিজিক্যালি কোন ভাবেই আমি ভালো নেই। স্বপ্ন ছিলো অনেক কিন্তু সেটা পূরন করতে পারলাম না, তার আগেই চলে যেতে হলো আমাকে মাফ করে দিবেন সবাই, বড়ো ভাই-ভাবি, মেজো ভাই, ফ্রেন্ডস কারো সাথে যদি কখনো অন্যায় করে থাকি তাহলে ক্ষমা করে দিয়েন সবাই, আর ফেমেলির কথা কি বলবো যদিও সবাই ভূলে যাবে কিন্তু ফেমেলি কখনো ভূলবে না বাবা-মা, ভাই সবাই আমাকে মাফ করে দিয়ো ভালো থেকো তোমরা সব সময়। MD Sagor & Md Galib Hasan দোস্ত তুরাই আমার লাইফে একটা বেষ্ট পার্সোন ছিলি সবসময় আমাকে সাপোর্ট করতি ভালো উপদেশ দিতি কিন্তু আমি শুনি নাই আজকে যদি তোর কথা গুলো শুনতাম তাহলে আর এই দিন দেখতে হতো না আমার ভালো থাকিস সবসময় নিজের খেয়াল রাখিস আর আমাকে মাফ করে দিস দোস্ত। ভালো থেকো প্রিয় মা-বাবা। ভালো থেকো প্রিয় মানুষ। ক্ষমা করে দিও আমায়…!! সব শেষ একটা কথা বলে যাই আমার মৃত্যুর জন্য কেউ দায়ী নয়, ভালো থাকবেন সবাই আল্লাহ হাফেজ।

Related Post

Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Leave A Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *