আবারো রাজনীতি থেকে অবসর নেয়ার ইঙ্গিত দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগের সভাপতি শেখ হাসিনা । তিনি বলেন, অবসর তো নিতেই হবে। অবসরের পর গোপালগঞ্জের টুঙ্গিপাড়ায় চলে যাব এবং সেখানেই থাকব।
শুক্রবার বিকেলে প্রধানমন্ত্রীর সরকারি বাসভবন গণভবনে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে এসব কথা বলেন তিনি। আওয়ামী লীগের সভাপতি দল ঢেলে সাজানোর ব্যাপারে বলেন, আমাদের কাউন্সিলের সময় ঘনিয়ে আসছে। কাউন্সিল মানেই দল নতুন করে সাজানো। ইতিমধ্যে আমরা আটটি টিম করে দিয়েছি।
অবসরে যাওয়ার ঘোষণা সম্পর্কে জানতে সাংবাদিকের প্রশ্নের জবাবে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘অবসর তো একদিন নিতেই হবে।’ আর তারপর দলের প্রধান কে হবেন সে ব্যাপারে প্রধানমন্ত্রী জানান, এটা ঠিক করবে দল। দল যাকে দায়িত্ব দেবে তিনি দলের প্রধান হবেন। এখানে তার কিছু করার নেই। দলের গঠনতন্ত্র অনুযায়ীই দল চলবে।

স্কুলজীবন থেকে রাজনীতির সঙ্গে জড়িত বলে জানান প্রধানমন্ত্রী। তিনি জানান, তার বয়স এখন ৭২ বছর। এর মধ্যে ৬০ বছর তিনি গভীরভাবে রাজনীতি পর্যবেক্ষণ করেছেন। এজন্য রাজনীতিতে তিনি সবার চেয়ে প্রবীণ।
নিজের রাজনীতিতে আসার প্রেক্ষাপট তুলে ধরে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘আমি কোনোদিন ভাবিনি দলের প্রেসিডেন্ট হবো। পঁচাত্তরের ১৫ আগস্টের পর লন্ডনে বঙ্গবন্ধুকে হত্যার পর প্রথম স্ট্যাটমেন্ট দেয় রেহানা।’
শেখ হাসিনা বলেন, ‘নেতৃত্বে যাবো কোনোদিন চিন্তাই করিনি। কাজ করার করে গেছি। আমাকে যখন দলের সভাপতি করা হলো তখন সিদ্ধান্ত নিলাম দেশে আসব। দেশে এসে দায়িত্ব নিয়েছি, কাজ করেছি। ক্ষমতায় আসার পর দেশকে একটা মর্যাদার আসনে অধিষ্ঠিত করতে সক্ষম হয়েছি।’
এ সময় তিনি মিডিয়ার ব্যাপারে তার আক্ষেপের কথা তুলে ধরে বলেন, ‘কাজ করতে গিয়ে কোনোদিন মিডিয়ার আনুকূল্য পাইনি। সব সময় বৈরিতা পেয়েছি।’

প্রধানমন্ত্রী বলেন, গত ২১ এপ্রিল শ্রীলঙ্কায় ঘটে যাওয়া মর্মান্তিক সিরিজ বোমা হামলায় নিহতদের স্মরণ করছি। এ হামলায় আমার ফুফাতো ভাই শেখ সেলিমের মেয়ের ছেলে আমার নাতি ৮ বছরের নিষ্পাপ শিশু জায়ান চৌধুরী নিহত হয়েছে। জায়ানের বাবা মশিউর হক চৌধুরী এখন পর্যন্ত গুরুতর আহত অবস্থায় শ্রীলঙ্কার একটি হাসপাতালে চিকিৎসা নিচ্ছেন। আমি নিহতদের আত্মার মাগফিরাত কামনা করছি এবং আহতদের দ্রুত আরোগ্য কামনা করছি।
তিনি বলেন, আমি ব্রুনাইয়ের রাজধানীতে পৌঁছানোর পর এই মর্মান্তিক হামলার খবর শুনতে পাই। আমাদের প্লেনটা যখন আকাশে উড়ছিল তখন খবর আসলো এ ধরনের হামলা হয়েছে। পরবর্তীতে ওখানে নেমে বিস্তারিত খবরটা পাই। জায়ানের মৃত্যুর খবর পাই। এ খবর পাওয়ার সঙ্গে সঙ্গে আমি শ্রীলঙ্কার প্রধানমন্ত্রীকে একটি শোক বার্তা পাঠাই। আমি এ হামলার তীব্র নিন্দা জানাচ্ছি এবং জঙ্গিবাদের বিরুদ্ধে সকলকে কার্যকর এবং ঐক্যবদ্ধ হওয়ার আহ্বান জানাই।
জঙ্গি হামলার আশঙ্কা প্রসঙ্গে এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, আমরা এ বিষয়ে সজাগ আছি। গোয়েন্দারা চমৎকার কাজ করছে। গতকালও আমি আমাদের গোয়েন্দা প্রধানদের সঙ্গে কথা বলেছি।

Related Post

Leave A Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *