ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের (ডিএনসিসি) মেয়র আতিকুল ইসলাম বলেছেন, আমাদের শহরের অনেক জায়গায় অনেক সুন্দর সুন্দর পাবলিক টয়লেট হয়েছে। এসব পাবলিক টয়লেট দেখলে মনে হয় ফাইভ স্টার হোটেলের মতো।
তিনি বলেন, ফাইভ স্টার হোটেলের পাবলিক টয়লেটের সঙ্গে এগুলোর খুব একটা পার্থক্য নেই। পাবলিক টয়লেটগুলোর পরিবেশ সুন্দর, টিস্যু বক্স আছে, প্রতিবন্ধীদের জন্য ব্যবস্থা আছে। সবকিছু মিলিয়ে আধুনিক সুযোগ-সুবিধা সম্পন্ন এসব টয়লেট।

বৃহস্পতিবার রাজধানীর একটি হোটেলে আয়োজিত এক সেমিনারে বক্তৃতাকালে তিনি এসব কথা বলেন। আন্তর্জাতিক এনজিও সংস্থা ওয়াটার এইড এবং দৈনিক ভোরের কাগজের উদ্যোগে এই সেমিনারের আয়োজন করা হয়। ‘বাংলাদেশের পাবলিক টয়লেট: সংখ্যা বৃদ্ধি এবং স্থায়িত্ব’ শীর্ষক এই সেমিনারে বিশেষ অতিথির বক্তব্যে ডিএনসিসি মেয়র আতিকুল ইসলাম বলেন, ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশন এলাকায় পাবলিক টয়লেটের সংখ্যা আরও বাড়ানো হবে। একইসঙ্গে এগুলোর রক্ষণাবেক্ষণের দায়িত্ব সবার বলেও মন্তব্য করেন তিনি।

মেয়র বলেন, আমরা ৫৩টি আধুনিক পাবলিক টয়লেট নির্মাণের কাজ শুরু করেছি, যার ১৮টির কাজ শেষ এবং নাগরিকেরা ব্যবহার করছেন। এসব স্থাপনা রক্ষার স্বার্থে এবং নতুন পাবলিক টয়লেট নির্মাণের জন্য আমাদের সবাইকে স্ব-উদ্যোগে এগিয়ে আসতে হবে।
অন্যদিকে এই পাবলিক টয়লেটগুলোর সম্পর্কে সবাইকে সচেতন করতে হবে। আমাদের এতো সুন্দর সুন্দর পাবলিক টয়লেট আছে, কিন্তু অনেকেই জানেন না। এখন একটি মোবাইল অ্যাপ আছে। এটির মাধ্যমে অনেকেই এখন এ বিষয়ে জানছেন। তবে এটিকে আরও ছড়িয়ে দিতে হবে।
দৈনিক ভোরের কাগজের সম্পাদক শ্যামল দত্তের সঞ্চালনায় সেমিনারে অন্যদের মাঝে আরও বক্তব্য রাখেন- ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনের (ডিএসসিসি) মেয়র সাঈদ খোকন, সিলেট সিটি কর্পোরেশনের (সিসিক) মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী, খুলনা উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যান ব্রিগেডিয়ার জেনারেল এএসএম মাহমুদ হাসান, ওয়াসার ব্যবস্থাপনা পরিচালক প্রকৌশলী তাকসিম এ খান প্রমুখ।

Related Post

Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Leave A Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *