কুলসুম বেগম একজন পোশাক শ্রমিক। পরকীয়া প্রেমিকের দুই বন্ধুর সঙ্গে শারীরিক সম্পর্কে রাজি না হওয়ায় তাকে খুন করা হয়েছে বলে তথ্য দিয়েছে দুই ঘাতক।

শনিবার জিজ্ঞাসাবাদে ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের (ডিবি) কাছে দুই বছর আগের এই হত্যাকাণ্ডের বর্ণনা দিয়েছে দুই ঘাতক কালু ও কাশেম। অন্যদিকে শুনানি শেষে ২ আসামিকে ৪ দিন করে রিমান্ড মঞ্জুর করেন ঢাকা মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট মো. ইলিয়াস মিয়া।
গোয়েন্দা পুলিশের উত্তর বিভাগের উপ-কমিশনার মশিউর রহমান গণমাধ্যমকে বলেন, কালু ও কাশেম হত্যার দায় স্বীকার করেছে। শিগগিরই ফৌজদারি কার্যবিধির ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দির জন্য তাদের আদালতে তোলা হবে।
ডিবি সূত্রে জানা গেছে, ২০১৭ সালের ২২ মার্চ রাজধানীর বিমানবন্দর থানার বেড়িবাঁধের ভিআইপি রোডসংলগ্ন টানপাড়া এলাকা থেকে মস্তকবিহীন এক নারীর লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। পরে আঙ্গুলের ছাপ যাচাইয়ের মাধ্যমে নিহতের পরিচয় শনাক্ত হয়।

এ বিষয়ে বিমানবন্দর থানায় মামলা হয়। মোবাইল ফোনে কথা বলার সূত্র ধরে ২০১৭ সালের ১০ এপ্রিল কুলসুমের পরকীয়া প্রেমিক এনামুলকে গ্রেপ্তার করলেও সে খুনের কথা স্বীকার করেনি। ৫ মাস পর জামিনে বেরিয়ে যায়। থানা পুলিশ ঘটনাটির রহস্য উদঘাটন করতে না পারায় মামলার তদন্তভার পায় ডিবি উত্তর। তথ্য-প্রযুক্তির মাধ্যমে হত্যাকাণ্ডের দুই বছর পর শুক্রবার কালু ও কাশেমকে রাজধানীর পল্লবী এলাকা থেকে আটক করে।

Related Post

Leave A Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *