একাত্তরের ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটির কেন্দ্রীয় সভাপতি শাহরিয়ার কবির বলেছেন, হুমায়ন আজাদের মৃত্যুর জন্য মাওলানা দেলওয়ার হোসাইন সাঈদী দায়ী। অথচ সাঈদীর কোন বিচার হল না। তার ওয়াজে সুস্পষ্ট ভাবে হুমায়ন আজাদের বিষয়ে কুৎসা করা হয়েছে। দুষ্কৃতিকারীরা তার ওয়াজ শুনে অনুপ্রাণিত হয়েই এই হত্যাকাণ্ড ঘটিয়েছে। আমি একটি কথা খোলামেলা ভাবেই বলতে চাই, আইএস, আলকায়দা, জামায়াতে ইসলাম সব একই সূত্রে গাঁথা ধর্মান্ধ গোষ্ঠী। এরা জঙ্গিবাদের জন্য দায়ী।

সম্প্রতি দেশের একটি বেসরকারি টেলিভিশনের টকশো অনুষ্ঠানে অংশ নিয়ে এসব কথা বলেন তিনি।

তিনি বলেন, আমি চিন্তিত, সত্যি সত্যি কোন দুর্ঘটনা ঘটে যায়, জাতিসংঘসহ পশ্চিমা বিশ্ব কেউ বিষয়টা ভালো ভাবে নিবে না। এটা দেশের ভাবমূর্তিকে আরও সংকটে ফেলে দিবে। বিশেষ করে হুমায়ন আজাদের উপর হামলাসহ অসংখ্য ব্লগার হত্যা কিন্তু ইতোমধ্যে সংকট সৃষ্টি করেছে এ বিষয়টা সরকারকে বুঝতে হবে।

শাহরিয়ার কবির বলেন, আমরা যদি চুনোপুঁটি না হতাম তবে আমাদেরকে যারা হত্যার হুমকি দিচ্ছে, তাদের অবশ্যই আইন শৃঙ্খলাবাহিনী গ্রেফতার করে বিচারের মুখোমুখি করতেন। তিনি ক্ষোভ প্রকাশ করেই বলেন, আমরা কি দেখতে পাই প্রধানমন্ত্রীকে কেউ কোন কটূক্তি করার সঙ্গে সঙ্গে অজপাড়া গ্রাম থেকেও গ্রেফতার করে বিচারের আওতায় আনা হয়।

তিনি বলেন, বাংলাদেশে জঙ্গি দমন হচ্ছে ঠিকই কিন্তু জঙ্গিবাদীতা কিন্তু বন্ধ হচ্ছে না। অর্থাৎ প্রচার প্রচারণা ও এই ধর্মান্ধ গোষ্ঠীর প্রপাগান্ডা কিন্তু বন্ধ হচ্ছে না। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে অনবরত প্রচারণা চালচ্ছে অসাম্প্রদায়িক মানুষকে হত্যার হুমকি দিয়ে। এসব বন্ধ না করলে দেশের বড় ক্ষতি হয়ে দাঁড়াবে। এই বিষয়টার উপর জোরালো পদক্ষেপ গ্রহণ করতে হবে। ধর্মান্ধা গোষ্ঠীর বিরুদ্ধে সম্মিলিত ভাবেই মোকাবেলা করতে হবে।

Related Post

Leave A Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *