রাজধানীসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে মৃদু ভূমিকম্প অনুভূত হয়েছে। বুধবার (১২ সেপ্টেম্বর) সকাল ১০টা ৫০ মিনিটে এ ভূমিকম্প অনুভূত হয়। তবে ভূমিকম্পে কোনো ধরনের ক্ষতির খবর পাওয়া যায়নি।
জেনে নিন ভুমিকম্প হলে কি কি করনিয়
বাংলাদেশও ভুমিক্প প্রবন দেশের মধ্য অন্যতম। ঢাকাতে ৫ হলেই ক্ষতির পরিমান হিবাবের বাইরে থাকবে । ভুমিকম্প এমন একটা দুর্যোগ যেটার পূর্বাভাস পাবার মত সায়েন্টিফিক ডিভাইস এখনো আবিষ্কার হয়নি তাই যেনে নিন আমাদের কি করা উচিত। শেয়ার করেও সবাইকে জানিয়ে দিতে পারেন যাতে সবাই সর্তক হতে পারে ১। ভূমিকম্পের সময় শক্তিশালী টেবিল বা এ ধনের আসবাবের নিচে আশ্রয় গ্রহণ করা উচিত, পতনশীল ভারি আসবাব, ছবির ফ্রেম, আয়না,জানালা থেকে দূরে থাকুন। ২।কোন অবস্থাতেই কাঁচেরজানালার পাশে অথবা এমন দেয়ালযা পড়ে যাবার সম্ভাবনা রয়েছে,তার পাশে অবস্থান নেয়া যাবেনা। ৩।বিশেষজ্ঞরা বলেন, যদিভূমিকম্পের সময় আপনি বিছানায়থাকেন, তাহলে সেখানেই থাকুনএবং বালিশ দিয়ে নিজেকে ঢেকেরাখুন। তবে লক্ষ্য রাখবেনঝাড়বাতি বা ফ্যান জাতীয় কিছুঘরে থাকলে সেটা থেকে নিরাপদ দূরত্বে থাকুন। ৪। আশেপাশে শক্ত পিলার থাকলেসেটার নিচে আশ্রয় নিন। বিভিন্নগবেষণায় দেখা গিয়েছেভূমিকম্পের সময় অধিকাংশ মানুষআহত অথবা নিহত হন ভূমিকম্পচলাকালিন অবস্থান পরিবর্তেনেরসময়। তাই কোন অবস্থাতেই ভূমিকম্পহওয়ার সময় দৌড় দেয়া অথবা দ্রুত বিল্ডিং থেকে নেমে যাওয়ার চেষ্টা করবেন না। উঁচু দালানের টপ ফ্লোরে থাকলে ছাদে চলে যাওয়া নিরাপদ কিন্তু যদি দরজা বা রাস্তা পরিষ্কার জানা না থাকে তাহলে ঘরেই অবস্থান নেয়া উচিত।

৫। আপনি যদি বাহিরে থাকেন এবং ভূমিকম্প হয়, তাহলে বিল্ডিং থেকে দূরে থাকুন। ১৯৩৩ সনে যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্কের “লং
বিচ আর্থকোয়েক”-এ অধিকাংশ মানুষ মারা গিয়েছিল যারা বিল্ডিং-এর বাহিরে ছিল। সে সময় বিভিন্ন স্থানে দেয়াল ধসে তাদের মৃত্যু হয়েছিল। ৬। আপনি যদি ড্রাইভ করতে থাকেন এবং ভূমিকম্প অনুভব করেন, তাহলে গাছ, বিল্ডিং, বৈদুতিক খুঁটি ইত্যাদি থেকে দূরে নিরাপদ স্থানে গাড়ি পার্ক করে থেমে থাকা বুদ্ধিমানের কাজ। ৭।ভূমিকম্পের পর পরই গ্যাস,বিদ্যুৎ ও পানির সংযোগগুলো পরীক্ষা করে নিন। ভূমিকম্পেরফলে এসব সংযোগে সমস্যা হতে পারে। গ্যাস, পানি ও বিদ্যুতের প্রধান সংযোগগুলো বন্ধ করে দিন। কোথাও কোনো লিক বা ক্ষতি দেখলে অভিজ্ঞ মিস্ত্রির সাহায্য নিন। ৮। আধা পাকা বা টিন দিয়ে তৈরি ঘর থেকে বের হতে না পারলে শক্তখাট বা চৌকির নিচে আশ্রয় নিন। ৯। টাকা বা অলঙ্কারের মতো কোনো কিছু সঙ্গে নেওয়ার জন্য অযথা সময় নষ্ট করবেন না। মনে রাখবেন, জীবনটাই সবচেয়ে বড়সম্পদ। অধিকাংশ ভূমিকম্পই মাত্র কয়েক সেকেন্ডে ভয়ংকর সর্বনাশ ঘটিয়ে দেয়। ১০। বড় ভূমিকম্পের পর পরই আরেকটা ছোট ভূমিকম্প (আফটার শক) হয়। তাই একবার ভূমিকম্প থেমে গেলেই নির্ভার হবে না। সতর্ক থাকুন, সাবধান থাকুন। ১১। লিফট বা এলিভেটর ব্যবহার করবেননা ১২। যদি ভবন ধসে আটকাও পড়েন, বেরিয়ে আসার কোনো পথ খুঁজে না পান, আশা হারাবেন না। সাহস রাখুন। সাহস আর আশাই আপনাকে বাঁচিয়ে রাখবে। ধৈর্য ধরে অপেক্ষা করুন। উদ্ধারকারী পর্যন্ত আপনার চিত্কার বা সংকেত পৌঁছানো যায় কী করে, ভাবতে থাকুন ও মাথা ঠান্ডা রাখুন।

Related Post

Spread the love
  • 2.9K
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    2.9K
    Shares