ইরানের সাথে আলোচনায় বসতে রাজি এই ঘোষণা দেয়ার দুই দিন পরই সুর পাল্টালেন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। এবার তিনি সরাসরি ধ্বংস করে দেয়ার হুমকি দিলেন। ট্রাম্প বলেছেন, যুক্তরাষ্ট্র বা তার স্বার্থসংশ্লিষ্ট কোন স্থাপনায় হামলা চালালে ইরানকে ধ্বংস করে দেয়া হবে। গত কয়েক দিনে ইরান ইস্যুতে মিশ্র মতামত পাওয়া গেছে ট্রাম্পের মন্ত্রীসভার সদস্যদের মধ্য থেকে। নিরাপত্তা উপদেষ্টা জন বোল্টন ইরান বিষয়ে আগ্রাসী হলেও অনেকেই চাইছেন উত্তেজনা প্রশমিত হোক। ট্রাম্প নিজেও একবার বলেছেন তিনিও আলোচনা চান। তবে এবার আবার তিনি ‘শেষ করে দেয়ার’ দেয়ার হুমকি দিলেন।
আলজাজিরা জানিয়েছে, রোববার ডোনাল্ড ট্রাম্প তার টুইটার অ্যাকাউন্টে লিখেছেন ‘ইরান যদি যুদ্ধ করতে চায়, সেটাই হবে তাদের আনুষ্ঠানিক সমাপ্তি। যুক্তরাষ্ট্রকে হুমকি দেয়ার দুঃসাহস করো না’। তবে ইরানকে কিভাবে শেষ করে দেয়া হবে সে ব্যাপারে ট্রাম্প কিছু বলেননি।

গত সপ্তাহে পারস্য উপসাগরে সৌদি তেলবাহী জাহাজে ড্রোন হামলা ও গতকাল ইরাকের রাজধানী বাগদাদের নিরাপদ এলাকা হিসেবে বিবেচিত গ্রিন জোনে রকেট হামলার পরই ট্রাম্পের এই হুমকি এলো। এলাকাটি সরকারি ও কূটনৈতিক অফিস পাড়া হিসেবে পরিচিত। হামলায় কেউ হতাহত হয়নি বলে জানিয়েছে ইরাকি সামরিক বাহিনী। কোন গ্রুপ এই দুটি হামলার দায় স্বীকার না করলেও সন্দেহের তীর ইরানের দিকে। ইরানের সাথে উত্তেজনা বৃদ্ধির পরিপ্রেক্ষিতে ওয়াশিংটন চলতি মাসের শুরুতে বি-৫২ বোমারু বিমানসহ একটি রণতরী পাঠিয়েছে মধ্যপ্রাচ্যের সমুদ্রসীমায়। এছাড়া আরো কয়েকটি যুদ্ধজাহাজ ও প্যাট্রিয়ট ক্ষেপণাস্ত্রও পাঠিয়েছে তারা। গত বুধবার ‍যুক্তরাষ্ট্র তাদের বাগদাদ দূতাবাস ও উত্তর ইরাকের ইবরিল কনস্যুলেট থেকে অপ্রয়োজনীয় লোকদের সরিয়ে নেয়ার আদেশ দিয়েছে। ইরান সমর্থিত ইরাকি সশস্ত্র গোষ্ঠির কাছ থেকে হামলার আশঙ্কায় এই সতর্কতা গ্রহণ করেছে যুক্তরাষ্ট্র।

Related Post

Leave A Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *