কোহলি

আইপিএলের আদলে বিশ্বকাপের সূচি চান বিরাট কোহলি। যেখানে গ্রুপের শীর্ষ দল ফাইনালে ওঠার লড়াইয়ে হারলেও আরেকটি সুযোগ পাবে। কাল সেমিফাইনালে নিউজিল্যান্ডের কাছে হারের পর এ কথা বলেন ভারতীয় অধিনায়ক, আইপিএলে যেমন হয় আরকি। পয়েন্ট টেবিলের শীর্ষ দুই দল মুখোমুখি হয় ফাইনালে ওঠার প্রথম কোয়ালিফায়ারে। জয়ী দল সরাসরি নাম লেখায় ফাইনালে। আর হেরে যাওয়া দল ফাইনালে ওঠার আরও একটি সুযোগ পেয়ে থাকে দ্বিতীয় কোয়ালিফায়ার খেলার মাধ্যমে। বিশ্বকাপেও ঠিক একই ফরম্যাট চান বিরাট কোহলি।

কাল সেমিফাইনাল থেকে ছিটকে পড়ার পর বিশ্বকাপের ফরম্যাট নিয়ে কিছুটা অসন্তোষই প্রকাশ করেছেন ভারতের এ অধিনায়ক। গ্রুপ পর্বে পয়েন্ট টেবিলের শীর্ষ দল হয়ে সেমিফাইনালে উঠেছে ভারত। কিন্তু কাল সেমিফাইনালে নিউজিল্যান্ডের কাছে ১৮ রানে হেরে বিদায় নিয়েছে কোহলির দল। গ্রুপ পর্বে দোর্দণ্ডপ্রতাপ দেখানো দলটি সেমিতে কিউইদের বিপক্ষে রোমাঞ্চ ছড়িয়ে হেরেছে। স্বাভাবিকভাবেই গোটা গ্রুপ পর্বে ভালো খেলে সেমির এক ম্যাচে হেরে বিদায় নেওয়ায় হতাশ কোহলি থেকে ভারতের ক্রিকেটপ্রেমীরাও। সংবাদ সম্মেলনে কোহলিকে প্রশ্ন করা হয়েছিল, বিশ্বকাপের ফরম্যাট আইপিএলের মতো চান কি না? যেখানে গ্রুপ পর্বের শীর্ষ দল প্রথম কোয়ালিফায়ারে হারলেও ফাইনালে ওঠার আরেকটি সুযোগ পেয়ে থাকে।

২০২৩ বিশ্বকাপ অনুষ্ঠিত হবে ভারতে। এ টুর্নামেন্ট সামনে রেখে ভারতীয় অধিনায়কের জবাব, ‘তেমন কিছু হলেই ভালো। গ্রুপ পর্বে টেবিলের শীর্ষে থাকার কিছু সুবিধা তো থাকা উচিত। টুর্নামেন্টের ব্যাপ্তি চিন্তা করলে এটা সত্যিই বিবেচনা করা উচিত। এটা খুবই যৌক্তিক কথা। তবে এটা কখন চালু হবে তা তো বলা যায় না। আপনি দুর্দান্ত খেলে গ্রুপ পর্বের শীর্ষে থেকে সেমিতে উঠবেন আর কিছু সময় বাজে ক্রিকেট খেলার জন্য গোটা টুর্নামেন্ট থেকেই বাদ পড়বেন, এটা দুঃখজনক। তবে এটা মেনে নিতে হবে।’ বিদায় নেওয়ার পর টুর্নামেন্টের ফরম্যাট নিয়ে এর আগেও প্রশ্ন তুলেছে ভারত। ২০০৭ বিশ্বকাপে বাংলাদেশের কাছে হেরে গ্রুপ পর্ব থেকেই ছিটকে পড়েছিল ভারত। সে বিশ্বকাপে একেকটি গ্রুপে ছিল চারটি করে দল। অর্থাৎ ভারত তিনটি ম্যাচ খেলার সুযোগ পেয়েছিল। ক্রিকেটপাগল দেশটি ওই বিশ্বকাপের গ্রুপ পর্ব থেকে বিদায় নেওয়ার পর আইসিসির বিশ্বকাপ–বাণিজ্যে নেতিবাচক প্রভাব পড়েছিল।

এরপর ওয়ানডে বিশ্বকাপে চার দল নিয়ে একেকটি গ্রুপের সে ফরম্যাট আর ফিরিয়ে আনেনি আইসিসি। সংবাদমাধ্যম জানিয়েছে, ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডের অনুরোধ কিংবা আদেশেই ফরম্যাট পাল্টে ফেলে আইসিসি। ২০১১ ও ২০১৫ বিশ্বকাপে দুটি করে গ্রুপে সাতটি করে দল খেলেছে। এ দুটি টুর্নামেন্টের মধ্যে প্রথমটিতে ভারত চ্যাম্পিয়ন হওয়ার পর গত টুর্নামেন্টের সেমিফাইনালে উঠেছিল। আর এবার গ্রুপ পর্বে ৯টি করে ম্যাচ পেয়েছে প্রতিটি দল। এবারও সেমি থেকে ছিটকে পড়ে ভীষণ হতাশ কোহলি, ‘খুব হতাশ লাগছে। গোটা টুর্নামেন্টে দুর্দান্ত ক্রিকেট খেলেও আমরা মাত্র ৪৫ মিনিট বাজে খেলার জন্য বাদ পড়লাম।’

Related Post

Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Leave A Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *