গর্ভাবস্থায় কোন জটিল সমস্যা না থাকলে ডাক্তাররা নরমাল ডেলিভারি বা ভ্যাজাইনাল ডেলিভারির পরামর্শ দেন। সন্তান জন্ম দেওয়ার এই উপায়টি সব থেকে নিরাপদ ও ঝুঁকি একদমই নেই বললেই চলে। বিজ্ঞান বলে নরমাল ডেলিভারি হলে পরবর্তী সন্তান ধারনের সময় কোন অসুবিধা হয়না। কিন্তু কিছু কিছু সময় তা সম্ভব হয় না, তাই অন্য রাস্তা অবলম্বন করতে হয়।

ডেলিভারির আর একটি উপায় হল সিজারিয়ান ডেলিভারি। কখনো কখনো এমন সময় আসে যখন মা অথবা বাচ্চা যেকোন একজনকে বাঁচানো সম্ভব হয়। সেই রকম সময় চিকিৎসক সিজিয়ারের সিদ্ধান্ত নেয়। কিন্তু সিজার করলে কঠিন কোন সমস্যা দেখা দিতে পারে।

আবার কোন ক্ষেত্রে এমন হয় যে বাচ্চার বাড়ির লোক কোন একটি নির্দিস্ট বিশেষ দিনে সন্তানের মুখ দেখতে চান, সে ক্ষেত্রে সিজারিয়ান পদ্ধতি অবলম্বন করতে হয়। সব কিছু পদ্ধতির ভালো খারাপ দুই দিক আছে।

তবে সবার মনেই একটা প্রশ্ন থাকে যে নরমাল ডেলিভারি ভালো না সিজার? আজ আপনাদের নরমাল এবং সিজার ডেলিভারির সুবিধা ও অসুবিধাগুলি জানাবো। আপনারা নিজেরা বিচার করবেন কোনটি আপনার জন্য ভালো।

সিজারিয়ানের সুবিধা ও অসুবিধা ঃ সিজারিয়ানের প্রধান সুবিধা হল মা কে প্রসব বেদনা সহ্য করতে হয়না। তাছাড়া ভ্যাজাইনাল ইনজুরি ও অত্যাধিক রক্তক্ষরণ থেকে মুক্তি পাওয়া যায়। অন্যদিকে এখানে মায়েদের অসুবিধাও হলো পরবর্তীতে সন্তান ধারণের সময় এক্টোপিক বা টিউবাল প্রেগনেন্সি, প্লাসেন্টা প্রিভিয়া, প্লাসেন্টা অ্যাক্রিটা এবং প্লাসেন্টাল অ্যাবরাপশন এর মতো সমস্যার হওয়ার সম্ভাবনা থাকে। আর বাচ্চার শ্বাসকষ্টের সমস্যা হতে পারে।

নরমাল ডেলিভারির সুবিধা ও অসুবিধা ঃ নরমাল বা ভ্যাজাইনাল ডেলিভারি খুব কষ্টকর ও অস্বস্তিকর। এই পদ্ধতিতে শরীর থেকে অনেক ঘাম বের হয়। অ্যামনিওটিক তরল, রক্ত এবং বাচ্চার জন্মের পর প্লাসেন্টা বা নাড়ি বের হয়। তাই আপনার এই পদ্ধতি নোংরা মনে হতে পারে। এছাড়াও এই পদ্ধতিতে ভ্যাজাইনাল ইনজুরি হতে পারে। অনেক ক্ষেত্রে এই ইনজুরি এত বেশি হয় যে সেলাই করতে হয়।
এর কিছু ভালো দিক আছে। যেমন নরমাল ডেলিভারিতে বাচ্চা জন্মালে সেই বাচ্চা শান্ত হয়। জন্মের পর মা ও বাচ্চা দুজনেই শারীরিক শক্তি লাভ করে। এই ক্ষেত্রে মা জন্মের ঠিক পরেই বাচ্চাকে বুকের দুধ পান করাতে পারে, ফলে মা ও সন্তানের বন্ধন দৃঢ় হয় ও বাচ্ছা সুস্থ সবল হয়।

Related Post

Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Leave A Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *