শারীরিক সমস্যা অনিয়মিত হয়ে পড়লে কী কী সমস্যা হতে পারে জানিয়েছে ‘আমেরিকান জার্নাল অফ মেডিসিন’–এ প্রকাশিত একটি গবেষণাপত্রে। গবেষণাপত্রে থেকে জানা যায়, অনিয়মিত শরীরিক সমস্যার কারণে হতে পারে পাঁচটি বড় সমস্যা।

চিকিৎসাবিজ্ঞানে বলে, শারীরিক সম্পর্ক হল একটি ব্যায়াম। সুস্থ থাকতে যা নিয়মিত করা উচিত। কিন্তু এমন সময় বা পরিস্থিতি আসে, যখন জীবন থেকে যৌনতা হারিয়ে যায়। অনেকের ক্ষেত্রে দেখা যায়, হয়তো সাময়িকভাবে, কারো বা দীর্ঘদিন ধরে সঙ্গীর সঙ্গে কোনো শারীরিক সমস্যা নেই। আসুন জেনে নেই অনিয়মিত শরীরিক সম্পর্কের ফলে হতে পারে যেসব সমস্যা।

ইরেক্টাইল ডিসফাংশন: ইরেক্টাইল ডিসফাংশন দেখা দিতে পারে। জেনে রাখুন, অন্তত ৮০ শতাংশ ক্ষেত্রে এমনটা হয়ে থাকে। ‘আমেরিকান জার্নাল অফ মেডিসিন’–এ প্রকাশিত একটি গবেষণাপত্রে জানানো হয়েছে, নিয়মিত শারীরিক সম্পর্ক পুরুষাঙ্গকে সুস্থ রাখে। সপ্তাহে যারা অন্তত একদিন সঙ্গীর সঙ্গে শারীরিক সস্পর্ক করেন, তাদের ক্ষেত্রে আচমকা শারীরিক সম্পর্ক বন্ধ হয়ে গেলে ইরেক্টাইল ডিসফাংশনের সম্ভাবনা কিঞ্চিৎ কম, বা দেরিতে আসে।

শরীরের প্রতিরোধ ক্ষমতা: শারীরিক সম্পর্ক শরীরের প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ে। অর্থাৎ, আচমকা শারীরিক সম্পর্ক বন্ধ হয়ে গেলে প্রতিরোধ ক্ষমতা কমে যেতে বাধ্য।

মিলন কামনা: দীর্ঘদিন শারীরিক সম্পর্ক বন্ধ থাকলে মিলন কামনা কমে যেতে বাধ্য। দেখা গিয়েছে, আচমকা মিলনতা বন্ধ হয়ে গেলে, প্রথম দিকে মিলনতার একটা প্রবল ইচ্ছা জেগে উঠতে পারে। কিন্তু দীর্ঘদিন মিলনতা না-থাকলে, তা ক্রমশ স্তিমিত হবে। তবে পুরোটাই নির্ভর করছে, কোন অবস্থায় মিলনতায় ছেদ আসছে? প্রবল মানসিক ঝড়ঝাপটা এলে মিলনতার ইচ্ছা একেবারে গোড়া থেকেই লুপ্ত হতে পারে।

মনকে হালকা করে: শারীরিক সম্পর্ক মনকে হালকা করে। রিল্যাক্সড থাকতে সাহায্য করে। স্বাভাবিকভাবেই মিলনতা না-থাকলে সেটি হারিয়ে যাবে জীবন থেকে।

স্মৃতিশক্তি ও বুদ্ধিমত্তা: নিয়মিত শারীরিক সম্পর্ক মানুষের মস্তিষ্ক অনেক বেশি সচল থাকে। অর্থাৎ, বুদ্ধিতে শান পড়ে নিয়মিত। স্মৃতিশক্তি ও বুদ্ধিমত্তার সঙ্গে যৌনতার প্রত্যক্ষ সম্পর্ক প্রমাণিত হয়েছে।

Related Post

Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Leave A Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *