এশিয়া কাপে হাতের ইঞ্জুরিতে বাদ পরে গেছেন তামিম,তার জায়গা পুরন নিয়ে শংকায় বিসিবি। এরি মধ্যে দলে আছেন ব্যাটসম্যান মোহাম্মদ মিঠুন। ২৭ বছর বয়সী এই ক্রিকেটার বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দলের হয়ে এখন পর্যন্ত তিনটি ওয়ানডে ও ১৩টি টি-টোয়েন্টি ম্যাচ খেলেছেন। তিন সর্বশেষ ওয়ানডে ম্যাচ খেলেছেন গত জানুয়ারিতে, ত্রিদেশীয় সিরিজের ফাইনাল ম্যাচে।প্রথম ম্যাচে ও শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ভাল পারফরমেন্স দেখিয়েছেন মিঠুন।
সম্প্রতি বাংলাদেশ এ দলের আয়ারল্যান্ড সফরে ভালো খেলেছেন মোহাম্মদ মিঠুন। আনঅফিসিয়াল ওয়ানডে সিরিজে ৮৭ ও ৭৩ রানের দুইটি ইনিংস খেলেন তিনি।এরপর আনঅফিসিয়াল টি-টোয়েন্টি সিরিজেও ৮০ রানের একটি ইনিংস খেলেন তিনি। এই সফরে ভালো খেলার পুরস্কার হিসাবেই তিনি দলে সুযোগ পেয়েছেন।

তাছাড়া অধিনায়ক মাশরাফি বিন মুর্তজা ও প্রধান কোচ স্টিভ রোডসও মোহাম্মদ মিঠুনকে দলে চেয়েছিলেন। এমনটি জানিয়েছেন, বিসিবির প্রধান নির্বাচক মিনহাজুল আবেদীন নান্নু।এই দলে জায়গা পাননি সাব্বির রহমান। আর সাব্বির রহমানের পজিশনের জন্যই দলে নেয়া হয়েছে মোহাম্মদ মিঠুনকে। আরিফুল হককেও একই পজিশনের জন্য দলে নেয়া হয়েছে।
মিনহাজুল আবেদীন নান্নু বলেছেন, ‘কোচ ও অধিনায়ক মিঠুনকে ছয় বা সাত নম্বর ব্যাটিং পজিশনের জন্য দলে চেয়েছিলেন। আরিফুলকেও একই পজিশনের জন্য দলে নেয়া হয়েছে।’
ক্রিকেট মাঠে সাব্বির রহমান যেমন মারদাঙ্গা নামে পরিচিত, ক্রিকেটের বাইরেও উচ্ছৃঙ্খল জীবন-যাপনে ততটাই সমালোচিত। একবার নারী কেলেঙ্কারি তো অন্যবার বিধি ভঙ্গ করে বারবার খবরের শিরোনাম হয়েছেন তিনি। নারী কেলেঙ্কারি, দর্শক পেটানো, ম্যাচ রেফারিকে হুমকি, আম্পয়ারদের গালি দেয়ার মতো নানা বিতর্কে জড়ানো সাব্বির রহমানের ছোট্ট খেলোয়াড়ি জীবন।
আর এসবের জন্যই এশিয়া কাপ থেকে দল থেকে বাদ দেওয়া হয়েছে তাকে। গেল বছর দেশের হয়ে ১৪ ওয়ানডে ম্যাচ খেলেছেন সাব্বির রহমান। এর মধ্যে মার্চে শ্রীলঙ্কায় ও মে মাসে নিউজিল্যান্ডে একটি করে ফিফটি-উর্ধ্ব ইনিংস খেলেন তিনি।বাকি ১২ ইনিংসে ৪০ রানের উপরে কোনো অবদান রাখতে পারেননি। এর মধ্যে দুই অংকেই পৌঁছাতে পারেননি ৫ ইনিংসে। সবমিলিয়ে ব্যাট হাতে বেশ খারাপই কেটেছে তার।

এদিকে সৌম্য সরকারকেও দল থেকে বাদ দেওয়া হয়েছে। দীর্ঘদিন ধরে ফর্মহীনতায় ভুগছেন সৌম্য সরকার। রানখড়া যেন পিছু ছাড়ছে না তার। আর তাতেই এশিয়া কাপে তার উপর আস্থা রাখতে পারছে না বিসিবি। অন্যদিকে আশার ফুল হয়ে উঠা ওয়ান ডাউন কিংবা ওপেনিংয়ে ভালোই শুরু করেছিলেন এনামুল হক বিজয়। একসময় যেন বার্তায় দিয়ে দিয়েছিলেন যে তিন নাম্বার পজিশনটা তার।

Related Post

Spread the love
  • 2.6K
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    2.6K
    Shares