স্ত্রীর আবদার,স্বামীর প্রতিকার
কজন শিক্ষিতা মেয়েকে বিয়ে করলেন এক ধার্মিক যুবক। বিয়ের প্রথম রাতেই স্ত্রী স্বামীকে বললেন, আমরা আমাদের দাম্পত্য জীবন ইসলামিক শরীয়াহ মোতাবেক পরিচালনা করবো ইনশা’আল্লাহ। স্বামী তার নববিবাহিতা স্ত্রীর প্রস্তাবে অানন্দিত হলেন।কারণ,তিনি এমন একজন স্ত্রী-ই কামনা করছিলেন। বিয়ের কিছুদিন পর স্ত্রী স্বামীর কাছে দাবি করলেন, শরীয়াহ মোতাবেক আপনি আমাকে আলাদা বাসায় রাখতে বাধ্য।
এবং আমি আপনার বৃদ্ধ পিতা-মাতার সেবা বা দেখাশোনা করতে বাধ্য নই। সুতরাং আমার জন্য আলাদা বাসা দেখুন। আমি এই বাসায় আর থাকছিনা।

স্বামী বেচারা মসিবতে পড়ে গেলেন। অনেক ভেবে চিন্তে দৌড়ে গেলেন মুফতী সাহেবের কাছে। বললেন, হুজুর এই অবস্থা! হুজুর বললেন, এটা একটা সমস্যা হলো! শুনুন, আপনার স্ত্রী যা বলেছেন তা সত্যি। কিন্তু যেই শরীয়াহ আপনার স্ত্রীকে এই অধিকার দিয়েছে, সেই একই শরীয়াহ আপনাকে প্রয়োজনে আরো ৩টি বিয়ে করার অনুমতিও দিয়েছে। আপনি চাইলে আরেকটি বিয়ে করে ঐ স্ত্রীকে বাসায় রেখে দিতে পারেন। যিনি কিনা আপনার মাতা-পিতার দেখাশোনাও করবেন, আবার এই বাসায়ও থাকবেন।

স্বামী চমৎকার সমাধান পেয়ে গেলেন। বাসায় ফিরেই তিনি স্ত্রীকে জানিয়ে দিলেন সাফ কথা। প্রিয়তমা! আমি তোমার সব শর্ত পূরণে রাজি।
আলাদা বাসা তুমি ঠিকই পাচ্ছো। এ কথা শুনে স্ত্রী খুশিতে গদগদ হয়ে উঠলেন। এবার স্বামী একটু গম্ভীর মোডে বললেন, কিন্তু ইসলামের অধিকার অনুযায়ী আমি আরো ৩টি বিয়ে করার অধিকার রাখি। আমি ঠিক করেছি অাপাততঃ অারেকটি বিয়ে করে বাসায় রেখে দিব এবং সে-ই অামার আব্বু-আম্মুর সেবা করবে! এ কথায় স্ত্রী ধাক্কা খেয়ে বলে উঠলেন,মাই সুইটহার্ট! বাদ দাওতো দ্বিতীয় বিয়ের চিন্তা। তোমার আব্বু-আম্মু কী অামার আব্বু-আম্মু নয়? আমিই অামার শ্বশুড়-শ্বাশুড়ির খেদমত করবো । এটা হাক্কুল ইবাদ বা বান্দার হক্ব।অার সত্যিই কী অামি অালাদা বাসা চাইছি? তুমি না ঢং ও বুঝোনা!???

Related Post

Spread the love
  • 555
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    555
    Shares