তোর মাকে মেরে ফেললে আমি তোর সংসার করতে আসব… বউয়ের কু-প্ররোচনায় রাজধানীর ডেমরায় ইলেকট্রিক শক দিয়ে মমতাজ বেগম (৫২) নামের এক মহিলাকে হত্যার চেষ্টা করেছে তার আপন ছেলে। এ ঘটনায় তিনি সোমবার রাতে তার ছোট ছেলে মো. জাকির হোসেন (২১) ও তার স্ত্রী ফারিয়া আক্তার শিমুকে (১৮) আসামি করে ডেমরা থানায় মামলা করেন।

এঘটনাই পুলিশ জাকিরকে গ্রেফতার করে মঙ্গলবার সকালে আদালতে পাঠায়। জাকির ফরিদপুরের সালথা থানার বড় লক্ষণদিয়া গ্রামের মৃত সালাম সরদারের ছেলে। তারা স্বপরিবারে ডেমরার কোনাপাড়া চিশতিয়া রোডের বাবুল মিয়ার বাড়িতে ভাড়া থাকেন।
এব্যাপারে ডেমরা থানার ওসি মো. সিদ্দিকুর রহমান বলেন, ভুক্তভোগী মমতাজ বেগম তার মেজো ছেলে মো. জাহাঙ্গীর আলম, ছোট ছেলে জাকির ও তার বউকে নিয়ে চিশতিয়া রোড এলাকায় ভাড়া থাকেন। গত রমজান মাসে জাকিরের সঙ্গে তার স্ত্রী শিমুর ঝগড়াঝাটি হলে সে কুমিল্লায় তার বাবার বাড়িতে চলে যায়।
ওসি আরো বলেন, পরবর্তীতে জাকির তার বউকে বাড়ি আসার কথা বললেই মোবাইল ফোনে জাকিরকে সে বলে ‘তোর মাকে যদি মেরে ফেলিস তাহলে আমি তোর সংসার করতে আসব’।
তিনি বলেন, দিনের পর দিন এমন প্ররোচনায় পড়ে জাকির গত রোববার রাত ১টার দিকে ঘুমন্ত অবস্থায় তার মায়ের শরীরে বিদ্যুতের তার বেঁধে ইলেকট্রিক শক দিয়ে তাকে হত্যার চেষ্টা করে। এ সময় ইলেকট্রিক শকে মমতাজ বেগমের ডান পায়ের গোড়ালি ও বৃদ্ধাঙ্গুলসহ তার পিঠ পুড়ে যায়।
সিদ্দিকুর রহমান বলেন, এ ঘটনায় তার চিৎকারে প্রতিবেশীরা এগিয়ে এলে জাকির পালিয়ে যায়। এদিকে প্রতিবেশীরা ও তার মেজো ছেলে মমতাজ বেগমকে উদ্ধার করে দ্রুত ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যায়।

Related Post