ইতালির রোমে অভিবাসীদের অধিকার আদায়ের লক্ষ্যে সম্প্রতি পাস হওয়া বর্ণবাদী আইন বাতিলের দাবিতে প্রতিবাদ সমাবেশ করেছে প্রবাসীরা। রোববার বিকেল ৪টায় এসকুইলিনো চত্বরে ধুমকেতু সামাজিক সংগঠনের সার্বিক সহযোগিতায় ও ইতালি বাংলাদেশ সমিতির আয়োজনে এ প্রতিবাদ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। ইতালি সরকারের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী সালবিনী বর্ণবাদী আইন অভিবাসীদের ভাবিয়ে তুলেছে। সালবিনীর বর্ণবাদী আইন ইতোমধ্যে মন্ত্রিপরিষদে অনুমোদন পেয়ে রাষ্ট্রপতির স্বাক্ষর সম্পন্ন হয়ে কার্যকর হয়েছে।পাস হওয়া আইন বাতিলের দাবিতে ইতালিতে বিভিন্ন বিদেশিদের সংগঠন প্রতিবাদ সভা ও সমাবেশ করে যাচ্ছেন। সমাবেশ থেকে বক্তারা বলেন, যারা ইতোমধ্যে ইতালীয় নাগরিকত্ব পেয়ে ইতালিয়ান হয়েছেন তাদের ও অরিজিন ইতালিয়ানদের সঙ্গে আইন করে বৈষম্য সৃষ্টি করা হবে। যা মেনে নেয়া যায় না। বসত বাড়ির নিচে কোন সামাজিক সংগঠন থাকতে পারবে না। এটা ধর্মীয় কার্যক্রম বন্ধ করার পাঁয়তারা করছে। ভাতা শুধু অরিজিন ইতালিয়ান পাবে এমন বর্ণবাদী আইন হচ্ছে। অথচ অরিজিন ইতালিয়ান ও বিদেশি উভয়েই সরকারকে রাজস্ব দিচ্ছে কিন্তু ভাতা পাবে অরজিন ইতালিয়ান তবে বিদেশির অপরাধ কোথায়?
তাই সবার অধিকার আদায় ও বর্ণবাদী আইন বাতিলের জন্য সাবেক বাংলাদেশ সমিতির সভাপতি ও ধুমকেতুর কর্ণধার নূরে আলম সিদ্দিকী বাচ্চু সকলের পক্ষ থেকে কিছু দাবি তুলে ধরেন এর মধ্যে সকলের জন্য স্টে পারমিট (সজোর্ন), দীর্ঘ মেয়াদি স্টে-পারমিট (কার্তা দ্য সজোর্ন) ৫ বছর পর নবায়ন পদ্ধতি বাতিল করন। মা-বাবার সঙ্গে শিশুদের স্টে পারমিট কার্তা দিতে হবে, মানবিক স্টে-পারমিট সজোর্ন চালু রাখতে হবে, সর্জোন নবায়ন পুলিশ অনুমতি (অসপিতি) মানতে হবে, নাগরিকত্ব পাওয়ার জন্য ১০ রেসিডেন্স বাতিল করাসহ অন্যান্য দাবি তুলে ধরেন। দাবী মানা না হলে আগামী ১৩ অক্টোবর রোববার ফের ইতালিতে বসবাসকারী সব বিদেশিদের এসকুইলিনো চত্বরে যোগ দেয়ার আহ্বান জানান।
সূত্রঃ jagonews24.com

Related Post