লিটন ঝড় চলছে রাজশাহীর স্টেডিয়ামে। বোলারদের নিয়ে যেনো রীতিমতো ছেলেখেলায় মেতেছেন লিটন। টি-টোয়েন্টিতেও হয়তো এমন মারকুটে ব্যাটিং দেখেনি কেউ। ডাবল সেঞ্চুরিটাও করলেন রাজার মতোই। ২ বলে ১ চার ও ছক্কা হাকিয়েই তুলে নিয়েছেন দূর্দান্ত এই ডাবল সেঞ্চুরি।আর এরই সাথে টেস্ট ক্রিকেটের ইতিহাসে সবচেয়ে দ্রুততম ডাবল সেঞ্চুরির মালিক হলেন লিটন। যদিও আন্তজার্তিক কোনো ম্যাচ নয় বলে এই রেকর্ডটা স্বীকৃতি পেল না। তবুও বাংলাদেশের ইতিহাসে এটাই সবচেয়ে দ্রুততম ডাবল সেঞ্চুরি।

জাতীয় ক্রিকেট লিগের (এনসিএল) টায়ার-১ এর ম্যাচে রংপুর বিভাগের বিপক্ষে প্রথম ইনিংসে ৫৮৯ রানে ইনিংস ঘোষণা করেছে রাজশাহী বিভাগ। গতকালকের দুই সেঞ্চুরির সাথে যোগ হয়েছে আরও এক সেঞ্চুরি। ৩৯ রানে অপরাজিত থাকা জুনায়েদ সিদ্দিকী তুলে নিয়েছেন শতক। আর সাথে সাথেই ইনিংস ঘোষণা করেছে রাজশাহী বিভাগ। অন্য প্রান্তে ১৫ রানে অপরাজিত ছিলেন সাব্বির রহমান।

২ উইকেটে ৪১৯ রানে নিয়ে তৃতীয় দিনের খেলা শুরু করে রাজশাহী বিভাগ। আগের দিন ২৬ রান করা ফরহাদ হোসেন তুলে নেন অর্ধশতক। এরপর ৬২ রানে সাজেদুল ইসলামের বলে বোল্ড হয়ে সাজঘরে ফিরেন। ফরহাদের আউটের পর ক্রিজে আসেন রাজশাহীর অধিনায়ক জহুরুল ইসলাম অমি। আগের ম্যাচে বড় শতক হাঁকানো অমি এই ম্যাচেও দারুণ খেলেছেন। ৫০ বলে ৬ চারে ৫৫ রান করেছেন।
এই দুই ব্যাটসম্যানের সাথে বড় জুটি গড়েছেন জুনায়েদ সিদ্দিকী। প্রথমে ফরহাদ হোসেনের সাথে ১০৭ ও এরপর জহুরুল ইসলামের সাথে ৯০ রানের জুটি গড়ে তোলেন জুনায়েদ। দলীয় ৫৬১ রানে অমির বিদায়ে ক্রিজে আসেন সাব্বির রহমান। তবে জুনায়েদ সিদ্দিকীর শতকের জন্য অপেক্ষা করছিল রাজশাহী। ১৯৯ বলে ৬ চারে সেঞ্চুরি পূরণ করেন এই বামহাতি ব্যাটসম্যান। এরপর ৪ উইকেটে ৫৮৯ রানে ইনিংস ঘোষণা করে রাজশাহী বিভাগ। ৩৩ বলে ১ ছয়ে ১৫ রানে অপরাজিত ছিলেন সাব্বির।

প্রথম ইনিংসে মাত্র ১৫১ রানে গুটিয়ে গিয়েছিল রংপুর বিভাগ। সর্বোচ্চ ৬০ রান করেছিলেন নাইম ইসলাম।প্রথম ইনিংসে রাজশাহী বিভাগের লিড ৪৩৮ রান। ৪৩৮ রান লিডকে সামনে রেখে ব্যাট করতে নেমে ব্যাটিং তান্ডব চালাচ্ছেন লিটন। শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত তাদের দলের সংগ্রহ ১ উইকেট হারিয়ে ৪৮ ওভার শেষে ৩১৭ রান। লিটন ১৪০ বলে ২০৩ রান করে ব্যাটিং করছেন।

Related Post