স্ত্রী কে দা ছ্যাকা দিয়ে অমানবিক নির্যাতনের ঘটনায় গ্রেপ্তার করা হয় মোঃ জামাল কে। বিস্তারিত পড়ুন।

এ কোন ধরনের নিষ্ঠুর বর্বরতা????
ভোলা দুলারহাট থানার নীলকমল ইউনিয়নের ২ নং ওয়ার্ডের বাসিন্দা মোঃ জামাল তার স্ত্রীকে গরম দা ছ্যাকা দিয়ে অমানবিক নির্যাতনের ঘটনা ঘটিয়েছে। গত মঙ্গল বার ( ৯ অক্টোবর ) বিকাল ৩ টা ৩০ মিনিটের সময় স্বামী মোঃ জামাল গরম দা দিয়ে তাকে নির্যাতন করে। গরম দা ছ্যাকা দিয়ে রিক্তা বেগম (২২) এর হাতে মুখে শরীরে গুরুতর ছ্যাকা দিয়ে ক্ষত বিক্ষত করে।
জানা যায়, চরফ্যাশন উপজেলার আমিনাবাদ ইউনিয়নের হোসেনের মেয়ে রিক্তা বেগমের সাথে দুলারহাট থানার নীলকমল ইউনিয়নের আঃ হানিফ এর ছেলে জামাল বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হন।

বিবাহের পর থেকে রিক্তা বেগমকে মারধর ও মৌখিকভাবে নির্যাতন করে আসছে বলে রিক্তা বেগম পুলিশ কে জানান। পরিশেষে রিক্তা কে গত মঙ্গল বার (৯ অক্টোবর ) বিকাল সাড়ে তিনটার সময় জামাল দা ছ্যাঁকা দিয়ে রিক্তার শরীরের বিভিন্ন স্থানে ক্ষত বিক্ষত করেন।

স্থানীয় লোক জনের সহযোগিতায় নীলকমল ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আলমগির হোসেন হাওলাদার দুলারহাট থানা পুলিশ কে খবর দিলে দুলারহাট থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মিজানুর রহমান পাটওয়ারী নেতৃত্বে ওসি তদন্ত নওশের আলী, এস আই সাদ্দাম, এস আই সিদ্দিক, এ এস আই শহিদ সহ সঙ্গীয় ফোর্স নিয়ে পাষন্ড স্বামী জামাল কে দফায় দফায় অভিযান চালিয়ে আটক করেন এবং স্ত্রী রিক্তা কে পাষন্ড স্বামীর হাত থেকে উদ্ধার করে উন্নত চিকিৎসার জন্য চরফ্যাশন সদর হাসপাতাল পাঠিয়ে দেন।
ইতিমধ্যে দুলারহাট থানা পুলিশ ঐ আসামিকে আইনের আওতায় নিয়ে এসেছেন।
পরিশেষে বলতে চাই
এধরনের নির্যাতনের প্রতিবাদ জানাই এবং কঠিন শাস্তি দাবি করছি যার দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দেখে অন্যরা এই জঘন্য অপরাধ থেকে বিরত থাকবে।

(Visited 94 times, 1 visits today)

Related Post

You may also like...