বরিশাল নগরীর সদর রোডের নবাব স্টেটের মধ্যে একটি বাসার সামনে রাস্তায় ফেলে যাওয়া এক কন্যা নবজাতককে জীবিত উদ্ধার করেছে পুলিশ। গত বুধবার গভীর রাতে ডায়াপার পরিহিত ও টাওয়েল পেঁচানো অবস্থায় সেই শিশুটিকে উদ্ধারের পরপরই বিদায়ী সিটি মেয়র আহসান হাবিব কামলের পুত্র কামরুল আহসান রূপন তাকে নেওয়ার আগ্রহ প্রকাশ করে। পরে পুলিশ প্রাথমিক আইনী প্রক্রিয়া সম্পন্ন করে সেই কন্যা শিশুটিকে তার হেফাজতে দেয়। রূপন জানান, গত বুধবার রাতে সদর রোডের নবাব স্টেটের মধ্যে (সিটি কলেজ) ক্যাম্পাসের মধ্যে তার নানা শ্বশুড় মৃত নাসিরউদ্দিনের বাসার অদূরে ডায়াপার পরিহিত ও টাওয়েল পেঁচানো একটি শিশু ঘিরে ৩টি কুকুর ঘেউ ঘেউ করছিলো। শিশুটির কান্না শুনে সেই বাসার বৃদ্ধা গৃহকর্মী মিনা বেগম ঘটনাস্থলে গিয়ে সেই শিশুটিকে দেখে বিষয়টি তার নানা শ্বাশুড়িকে জানান। পরে তারা শিশুটিকে উদ্ধার করে পুলিশ খবর দেন। পুলিশের উপস্থিতিতে তিনি শিশুটির নিরাপত্তায় তাকে হেফাজতে নেওয়ার আগ্রহ প্রকাশ করেন। পুলিশ প্রাথমিক আইনী প্রক্রিয়ার মাধ্যমে ওই নবজাতককে তার জিন্মায় দেন। তিনি বাজার রোডে তার শ্বশুড়ের বাসায় নিয়ে যান শিশুটিকে। রূপন বলেন, আনুমানিক ১ মাস বয়সের কন্যা শিশুটি দেখতে বেশ সুন্দর। শিশুটি আশপাশের কারও অবৈধ মেলামেশার ফসল হতে পারে বলে ধারনা তার। প্রয়োজনে ডিএনএ পরীক্ষা করে হলেও শিশুটির প্রকৃত জন্মদাতার পরিচয় উদঘাটিত হওয়া উচিত বলে তিনি মনে করেন। মেট্রোপলিটন পুলিশের উপ-কশিমনার (দক্ষিন) জানান, স্থানীয়দের সংবাদের ভিত্তিতে বুধবার গীর রাতে শিশুটিকে উদ্ধার করে পুলিশ। শিশুটি দেখতে খুবই সুন্দর। একজন তাকে নিতে আগ্রহ প্রকাশ করায় আপাতত তার জিন্মায় দেওয়া হয়েছে। শিশুটিকে আদালতে উপস্থাপন করা হবে। আদালতের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী পরবর্তী ব্যবস্থা নেওয়া হবে। একটি নবজাতককে রাস্তায় ফেলে যাওয়ার ঘটনা বিপন্ন মানবতার চিত্রই ফুঁটে ওঠে বলে মনে করেন তিনি।

Related Post