সৌদি রাজপ্রাসাদে খাশোগি পরিবার

সৌদির রিয়াদে রাজপ্রাসাদে সাংবাদিক জামাল খাশোগির পরিবারের সঙ্গে দেখা করেছেন সৌদি বাদশা ও সৌদি যুবরাজ। মঙ্গলবার নিহত খাশোগির ভাই শাল বিন আহমেদ খাশোগি ও ছেলে সালাহ জামাল খাশোগি দেখা করতে যান, তাদের সমবেদনা জানান সৌদি বাদশা ও সৌদি যুবরাজ। শাল ও সালা খাশোগির পক্ষ থেকে যুবরাজ ও বাদশাকে ধন্যবাদ জানানো হয় বলে প্রতিবেদনে প্রকাশ করা হয়। জামাল খাশোগি ওয়াশিংটন পোস্টের কলাম লেখক ছিলেন। তিনি ২ অক্টোবর সৌদি কনস্যুলেটে গিয়ে নিখোঁজ হন। দুই সপ্তাহেরও বেশি সময় সৌদি খাশোগি হত্যার ঘটনা অস্বীকার করে আসছিল। পরে সৌদি সরকার গত শনিবার কনস্যুলেটের ভেতরে হাতাহাতিতে নিহত হয় বলে জানান। খাশোগি ২০১৭ সাল থেকে স্বেচ্ছায় নির্বাসিত হয়ে যুক্তরাষ্ট্রের ভার্জিনিয়ায় বসবাস করে আসছিলেন।

সৌদি আরব, সরকারিভাবে সৌদি আরব সম্রাজ্য মধ্যপ্রাচ্যের একটি সার্বভৌম আরব রাষ্ট্র। ২১,৫০,০০০ বর্গ কিমি আয়তনের এদেশটি এশিয়ার সবচেয়ে বড় আরব দেশ এবং আলজেরিয়ার পরে আরব বিশ্বে দ্বিতীয় বৃহত্তম দেশ। সৌদি আরবের উত্তরে জর্দান ও ইরাক, উত্তরপূর্বে কুয়েত ,পূর্বে কাতার, বাহরাইন এবং সংযুক্ত আরব আমিরাত অবস্থিত, দক্ষিনপুর্বে ওমান ও দক্ষিনে ইয়েমেন অবস্থিত। সৌদি আরব মূলত চারটি সতন্ত্র অঞ্চল হেজাজ, নজদ, আল হাসা পুর্বাঞ্চলীয় আরব এবং আসির দক্ষিণাঞ্চলীয় আরব নিয়ে গঠিত। আবদুল আজিজ ইবনে সৌদ ১৯৩২ সালে সৌদি আরব সাম্রাজ্য প্রতিষ্ঠা করেন। তিনি ১৯০২ সালের শুরুতে রিয়াদ ও তার পুর্বপুরুষের রাজ্য দখলসহ ধারাবাহিক যুদ্ধের মাধ্যমে চারটি অঞ্চলকে একত্রিত করে একটি রাষ্ট্রে পরিণত করেন। দেশটি পুরোপুরি রাজতান্ত্রিক পদ্ধতিতে পরিচালিত হয় এবং আইনের ক্ষেত্রে ইসলামি আইনের অনুসরণ করা হয়। ইসলামের দুই পবিত্র মসজিদ মসজিদুল হারাম ও মসজিদে নববীর কারণে সৌদি আরবকে দুই পবিত্র মসজিদের দেশ বলা হয়। দেশটিতে ২,৮৭,০০০০০ জন বাস করে যার মধ্যে দুই কোটি সৌদিয়ান আর ৮৭,০০,০০০ জন বিদেশী।[তথ্যসূত্র প্রয়োজন] পৃথিবীর অন্যতম প্রধান সর্বোচ্চ তেল উৎপাদন ও রপ্তানিকারক এবং পৃথিবীর দ্বিতীয় বৃহত্তম হাইড্রোকার্বন মজুদকারি দেশ।[তথ্যসূত্র প্রয়োজন] এই তেলের কারণে দেশটির অর্থনীতি যেমন বাড়ছে তেমনিভাবে এর মানব সম্পদ উন্নয়ন সূচকেও উপরের দিকে। তাছাড়াও একমাত্র আরব দেশ হিসেবে জি-২০ প্রধান অর্থনৈতিক শক্তির সদস্য। দেশটি তার অর্থনীতিকে কর্পোরেশন কাউন্সিল ফর দ্য আরব স্টেটস অব দ্য গালফ (জিসিসি) এর মধ্যে ডাইভারইসিফাইড করছে। পৃথিবীর চতুর্থ সর্বোচ্চ সামরিক খরচ বহনকারী দেশ সৌদি আরব।[তথ্যসূত্র প্রয়োজন] দেশটিকে মধ্যপ্রাচ্যের ক্ষমতাধর দেশ হিসেবে ধরা হয়। সৌদি আরব জিসিসি, ওআইসি ও ওপেক এর সদস্য।

(Visited 24 times, 2 visits today)

Related Post

You may also like...