সৌদি সাংবাদিক জামাল খাসোগজির হত্যার কথিত অডিও রেকর্ডিং মার্কিন গুপ্তচর সংস্থা সিআইএ-র প্রধান জিনা হ্যাসপেলকে বাজিয়ে শোনানো হয়েছে । মনে করা হচ্ছে এই টেপে হত্যাকান্ডের সময়কার নির্যাতন, চিৎকার, দেহ কেটে টুকরো করা – ইত্যাদির শব্দ ধরা পড়েছে। বিবিসির সংবাদদাতা মার্ক লোয়েন বলছেন, এই টেপ শোনানোর মধ্যে দিয়ে তুরস্ক তার সবচেয়ে বড় তুরুপের তাসটি খেলেছে। মিজ হ্যাসপেল চলতি সপ্তাহে তুরস্ক সফর করেন,এবং সে সময়ই তিনি স্বয়ং সেই রেকর্ডিং শুনেছেন। নিরাপত্তা সূত্রগুলো বিবিসিকে এ খবর দিয়েছে। এই রেকর্ডিংএ ইস্তাম্বুলের সৌদি কনস্যুলেটের ভেতরে সাংবাদিক জামাল খাসোগজিকে জিজ্ঞাসাবাদ এবং হত্যার সময়কার শব্দ ধরা পড়েছে। একটি সূত্র টেপটিকে খুবই ‘মর্মান্তিক’ বলে বর্ণনা করেছে। মনে করা হচ্ছে সেই হত্যাকান্ডের সময় নির্যাতন, চিৎকার এবং দেহ কেটে খন্ডবিখন্ড করার যেসব খুঁটিনাটি বর্ণনা এতদিন ধরে তুরস্কের সংবাদমাধ্যমে ফাঁস হয়েছে – তার সবই এই টেপে আছে, এবং তা এখন আমেরিকান সরকারের হাতে পৌঁছেছে।

জিনা হ্যাসপেল আজই আরো পরের দিকে কোন এক সময় মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পকে এ ব্যাপারে অবহিত করবেন। তুরস্কের সরকারের মতে, এই টেপ প্রমাণ করে যে ঠান্ডা মাথায় পরিকল্পনা করে এ ঘটনা ঘটানো হয়েছে। এখন প্রশ্ন হচ্ছে : এর সঙ্গে সৌদি রাষ্ট্রের সর্বোচ্চ স্তরের যোগাযোগ ছিল কিনা।মার্ক লোয়েন বলছেন, যদি তা থেকে থাকে – তাহলে তুরস্ক আশা করবে যে এ হত্যার আদেশ যারা দিয়েছে, তাদের বিচারের জন্য মার্কিন সরকার রিয়াদের প্রতি কঠোর অবস্থান নেবে। মি. খাসোগজির মৃতদেহ এখনো পাওয়া যায় নি। মৃতদেহের সন্ধানের বিভিন্ন জায়গায় অনুসন্ধান চলছে। সবশেষ অনুসন্ধানকারীদের মনোযোগ কেন্দ্রীভূত হয়েছে সৌদি কনস্যুলেট ভবনের বাগানে একটি কুয়োর দিকে। এটি তল্লাশির অনুমতি পাওয়া গেছে কিনা তা নিয়ে পরস্পরবিরোধী খবর আসছে। ওদিকে সৌদি আরবের একটি রাষ্ট্রীয় টিভি চ্যানেল খবর দিয়েছে যে সৌদি এবং তুর্কীদের নিয়ে তৈরি একটি যৌথ টাস্ক ফোর্স প্রমাণ পেয়েছে যে মি. খাসোগজিকে পূর্বপরিকল্পিতভাবে খুন করা হয়েছে।

গত ২রা অক্টোবর মি. খাসোগজি তার বিবাহবিচ্ছেদের দলিলপত্র সংগ্রহ করতে সৌদি কনস্যুলেটে ঢোকার পর আর বের হন নি। সংবাদমাধ্যমে বিভিন্ন সূত্র উদ্ধৃত করে বলা হয়, সৌদি আরব থেকে আসা ১৫ জনের একটি দল তাকে কনস্যুলেটের ভেতরেই হত্যা করে এবং তার লাশ টুকরো টুকরো করে। সৌদি আরব বলছে, কিছু এজেন্ট তাদের ক্ষমতার সীমার বাইরে গিয়ে এ কাজ করেছে।তুরস্কের প্রেসিডেন্ট এরদোয়ান আজ পর পর দ্বিতীয় দিনের মত বলেছেন, সৌদি সাংবাদিক জামাল খাসোগজির হত্যাকান্ডকে তিনি কোনোভাবেই ধামাচাপা পড়তে দেবেন না।
প্রেসিডেন্ট এরদোয়ান অভিযোগ করেন, এটি ছিল একটি পরিকল্পিত রাজনৈতিক হত্যাকান্ড যা ঘটিয়েছে সৌদি গোয়েন্দা এবং অন্য কর্মকর্তারা।
তিনি বলেন, ইস্তাম্বুলে সৌদি কনসুলেটের মধ্যে এই হত্যাকান্ডে যাদের প্রত্যক্ষ এবং পরোক্ষ ভূমিকা ছিল, যাদের নির্দেশে এই হত্যাকান্ড হয়েছে – তাদের শাস্তি পেতে হবে।
সুত্রঃ বিবিসি নিউজ

Related Post

Spread the love
  • 159
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    159
    Shares