জামাল খাসোগি হত্যাকাণ্ড ইস্যুতে এতদিনে ‘লাইনে’ এলেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। এখন তিনিও মনে করছেন, হত্যাকাণ্ডে জড়িত থাকতে পারেন সৌদি যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমান। ২ অক্টোবর হত্যা সংঘটিত হওয়ার পর এ প্রথমবারের মতো হত্যার মাস্টার মাইন্ড যুবরাজের দিকে ইঙ্গিত করলেন তিনি। বলেন, ‘রিয়াদে বসেই যুবরাজ সব কলকাঠি নাড়ছেন বলে মনে হচ্ছে।’ মঙ্গলবার ওয়াল স্ট্রিট জার্নালকে দেয়া সাক্ষাৎকারে এ মন্তব্য করেন ট্রাম্প। একই ইঙ্গিত দিয়েছেন তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রিসেপ তায়েপ এরদোগান। মঙ্গলবার তুর্কি পার্লামেন্টের অধিবেশনে এক ভাষণে খাসোগির হত্যার ‘নগ্ন সত্য’ প্রকাশ করলেও সরাসরি যুবরাজের নাম উল্লেখ করেননি তিনি।
পরদিন বুধবার তুর্কি প্রেসিডেন্টের এক মুখপাত্র বলেছেন, হত্যাকাণ্ডে যুবরাজের হাত থাকতে পারে। হুঙ্কার দিয়ে এরদোগান বলেছেন, খাসোগি হত্যাকারীদের কাউকে ছাড় দেবে না তুরস্ক। খাসোগি হত্যাকাণ্ডকে একেবারে ভিন্ন দৃষ্টিভঙ্গি থেকে দেখছে ইরান। দেশটি বলেছে, যুক্তরাষ্ট্রের মদদ ছাড়া সৌদির পক্ষে কোনোভাবেই খাসোগিকে হত্যা সম্ভব নয়। মার্কিনসংশ্লিষ্টতা ছাড়া রিয়াদ কখনোই খাসোগি হত্যা করত না। খবর দ্য গার্ডিয়ান, ইয়েনি সাফাক ও এএফপির।

শুরু থেকেই এ ঘটনায় যুবরাজের সম্ভাব্য সংশ্লিষ্টতার অভিযোগ উঠলেও হত্যাকাণ্ডে সৌদি শীর্ষ নেতৃত্বের সংশ্লিষ্টতার সম্ভাবনা নাকচ করে আসছিলেন ট্রাম্প। তবে মঙ্গলবার প্রথমবারের মতো যুবরাজের সংশ্লিষ্টতা নিয়ে একমত হন তিনি। খাসোগি মামলা নিয়ে কাজ করতে সিআইএ প্রধান গিনা হ্যাসপেল এখন আঙ্কারায়। তিনি তুর্কি কর্মকর্তাদের হাতে থাকা হত্যার অডিও-ভিডিও শুনতে চাইলে মঙ্গলবার তাকে সেগুলো দেখানো হয়।খবরটি তুর্কি দৈনিক ইয়েনি সাফাকে প্রকাশ হওয়ার পরই যুবরাজকে নিয়ে সাক্ষাৎকার দেন ট্রাম্প। এ ব্যাপারে এক প্রশ্নের উত্তরে তিনি বলেন, ‘তিনিই কলকাঠি নাড়ছেন। হত্যার নেপথ্যে যদি কেউ থেকে থাকে, তাহলে সেটা তিনিই হবেন।’ পৃথক এক মন্তব্যে ট্রাম্প বলেন, হত্যাকাণ্ডের ঘটনাকে ‘সবচেয়ে বাজেভাবে ধামাচাপা’ দিতে চেয়েছিল সৌদি কর্তৃপক্ষ। হত্যাকাণ্ডের প্রাথমিক শাস্তি হিসেবে দায়ী সৌদি নাগরিকদের ভিসা সুবিধা বাতিল করে যুক্তরাষ্ট্র। মঙ্গলবার এক বিবৃতিতে এ তথ্য নিশ্চিত করেন মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাইক পম্পেও। ট্রাম্প প্রশাসনের দেখাদেখি একই পদক্ষেপ নেয় ব্রিটিশ সরকার। প্রধানমন্ত্রী তেরেসা মে বলেন, খাসোগি হত্যায় সৌদির সন্দেহভাজন নাগরিকদের ভিসা বাতিল করবে ব্রিটেন। হত্যাকাণ্ডে জড়িত ২১ সন্দেহভাজনের ভিসা বাতিলে ট্রাম্প প্রশাসনের অনুসরণে পদক্ষেপ নেয় ব্রিটিশ কর্তৃপক্ষ।

ট্রাম্পের বক্তব্যের প্রতিক্রিয়ায় বুধবার ইরানের প্রেসিডেন্ট ড. হাসান রুহানি বলেন, ওয়াশিংটনের মদদ ও সুরক্ষা ছাড়া খাসোগিকে কখনও হত্যা করত না রিয়াদ। তিনি বলেন, ‘আজকের বিশ্ব ও নতুন শতাব্দীতে এসে কেউ কল্পনাও করতে পারেনি যে, এমন একটা গর্হিত হত্যাকাণ্ড আমরা দেখব।’ বুধবার নতুন করে হুশিয়ারি দিয়ে তুর্কি প্রেসিডেন্ট এরদোগান বলেন, বিচারের হাত থেকে অপরাধীদের কেউ পার পাবে না। তুরস্ক কাউকে ছাড় দেবে না। তিনি বলেন, ‘এমন নারকীয় হত্যাকাণ্ড ধামাচাপা দেয়ার সুযোগ কাউকে দেব না আমরা। যেখানে থেকে এর নির্দেশ এসেছে তাদের কেউই বিচার প্রক্রিয়া এড়াতে পারবে না।
এদিকে জাতিসংঘ বলেছে, তুরস্ক যদি অনুরোধ করে খাসোগি হত্যাকাণ্ডের তদন্ত করবে সংস্থাটি। বুধবার সংস্থাটির মুখপাত্র ফারহান হক বলেন, ‘তুরস্কের পক্ষ থেকে আনুষ্ঠানিক কোনো অনুরোধ আসা পর্যন্ত আমরা অপেক্ষা করব। সেরকম কিছু পেলে, আমরা বিবেচনা করে দেখব।’

খাসোগির হত্যা প্রমাণে আঙুল কেটে যুবরাজের কাছে নিয়েছিল কিলিং স্কোয়াড : খাসোগিকে হত্যার পর তার একটি আঙুল সৌদি আরবে নিয়ে গিয়েছিল কিলিং স্কোয়াডের সদস্যরা। হত্যা মিশন সফল হয়েছে প্রমাণ করতেই সৌদি যুবরাজ মোহাম্মদ এ আদেশ দিয়েছিলেন।
রাজপরিবারের ঘনিষ্ঠ সূত্রের বরাত দিয়ে ইরানের তেহরান টাইমস এবং যুক্তরাজ্যের মিরর ডটকমের প্রতিবেদনে এমন দাবি করা হয়েছে। খবরে বলে হয়েছে, খাসোগির কাটা আঙুল সৌদি যুবরাজের কাছে উপস্থাপন করা হয়েছিল। রাজপরিবারের ঘনিষ্ঠ সূত্র জানিয়েছে, ‘যুবরাজ সালমান সব সময়ই বলে থাকেন, যেসব লেখক তার সমালোচনা করবেন, তাদের আঙুল তিনি কেটে ফেলবেন। সাংবাদিক জামাল খাসোগির সঙ্গে এমনটাই ঘটেছে বলে ধারণা করা যায়।’খাসোগির ছেলের সঙ্গে বাদশাহ ও যুবরাজের সাক্ষাৎ : খাসোগির পরিবারের সঙ্গে সাক্ষাৎ করেছেন বাদশাহ সালমান বিন আবদুল আজিজ ও যুবরাজ মোহাম্মদ। মঙ্গলবার সৌদি আরবের রাজধানী রিয়াদে একটি প্রাসাদে খাসোগির পরিবারের সঙ্গে তারা সাক্ষাৎ করেন।খবরে বলা হয়, রিয়াদে ইমামা প্রাসাদে খাসোগির ছেলে সালাহ ও তার ভাই সাহেলের সঙ্গে সাক্ষাৎ করেন সৌদি বাদশাহ। এ সময় বাদশাহ ও যুবরাজ তাদের সান্ত্বনা দেন। এর আগে সোমবার জামাল খাসোগির ছেলেকে ফোন করে কথা বলেছেন যুবরাজ ও বাদশাহ সালমান।

Related Post

Spread the love
  • 558
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    558
    Shares