জয়পুরহাটে ইলেকট্রিক রাইস কুকার বিস্ফেরিত হয়ে প্রাণ হারান পুর এক পরিবার।

জয়পুরহাট শহরের আরামনগর মহল্লার একটি বাড়িতে বৈদ্যুতিক শর্ট সার্কিট থেকে আগুন লেগে একই পরিবারের ৮ সদস্য নিহত হয়েছেন।
বুধবার (৭ নভেম্বর) দিনগত রাত সাড়ে ৯টার দিকে এ দুর্ঘটনায় প্রথমে তিনজনের মৃত্যু হয়। দগ্ধ হন পাঁচজন। অপর ৫ জনকে দগ্ধ অবস্থায় বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়ার পথে ৪ জনের মৃত্যু হয়। জীবিত বাকি ১ জনকে বগুড়া থেকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে নেওয়ার পথে তারও মৃত্যু হয়।

নিহতরা হলেন-বাড়ির গৃহকর্তা আব্দুল মোমিন (৩৭), মোমিনের মা মোমেনা বেগম (৬৫), মোমিনের বাবা দুলাল হোসেন (৭১), স্ত্রী পরীনা বেগম (৩০), বড় মেয়ে জেএসসি পরীক্ষার্থী বৃষ্টি (১৪), জমজ দুই মেয়ে হাসি ও খুশি (১২) এবং ছোট ছেলে তাইমুল ইসলাম নুর (৬)। জয়পুরহাট ফায়ার স্টেশনের পরিদর্শক সিরাজুল ইসলাম বলেন, বুধবার রাত সাড়ে ৯টার দিকে ব্যবসায়ী মোমিনের বাড়িতে আগুন লাগে। মুহূর্তেই তা পুরো বাড়িতে ছড়িয়ে পড়ে। জয়পুরহাট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি-তদন্ত) মমিনুল হক জানান, খবর পেয়ে পুলিশ ও ফায়ার সার্ভিস সদস্যরা ঘটনাস্থলে গিয়ে উদ্ধার তৎপরতা শুরু করেন। ঘটনাস্থলেই তিনজন মারা যান, দগ্ধ পরিবারের অন্য পাঁচ সদস্যকে প্রথমে জয়পুরহাট আধুনিক জেলা হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। পরে অবস্থার অবনতি হলে তাদের বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ও ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালের বার্ন ইউনিটে পাঠানো হয়। জয়পুরহাট পুলিশ সুপার রশিদুল হাসান জানান, রাতে মোমিনের মা মোমেনা বাসার রাইস কুকারে রান্না করার সময় বৈদ্যুতিক গোলযোগ থেকে আগুনের সূত্রপাত হয় বলে তারা জানতে পেরেছেন। এ ঘটনায় পুরো এলাকায় শোকের ছায়া নেমে এসেছে। স্বজন ও এলাকাবাসী বাড়িটির সামনে ভিড় করছেন।

(Visited 73 times, 1 visits today)

Related Post

You may also like...