ভয় ব্যাপারটা খুবই সাময়িক। অনেক সময় বিভিন্ন পরিস্থিতিতে এমন হতে পারে। ভয়ের কোন সিনেমা দেখলে রাতে বিছানায় একটু আধটু সেই ভুতগুলি যে ডিস্টার্ব করেনা সেটা কেউ বলবেনা। আমার নিজেরও মাঝে মধ্যে ভয় করে এসব উদ্ভট সিনেমা দেখে কিন্তু আমি নিজে মোটেই পাত্তা দেইনা এই ভয় কে। ভয় মানুষের মনে কোন উতস থেকে তৈরি হয়। হতে পারে হরর সিনেমা, মৃত মানুষকে দেখা বা অন্য যেকোন ভাবে ভয় আপনাকে গ্রাস করতে পারে। তবে রাতে একা একা থাকতে গেলে ভয়ের কিছু দৃষ্টিভঙ্গি তৈরি হয়। এক্ষেত্রে ঘরের জানালা, এর দুলায়িত পর্দা, ঘরের অন্ধকার কোণ এসব জায়গাগুলি মাথার মধ্যে ভয় কে প্রবেশ করিয়ে দেয়। এইসব মুহুর্তে নিজের আত্মবিশ্বাস এবং কৌতুহলই পারবে আপনার অমুলক ভয়কে দূর করে দিতে। ধরা যাক আপনি জানালা এবং এর পর্দার দোলায়মান দেখে ভয় বাড়ছে। উঠে জানালা খুলে দিন, জানালা দিয়ে বাইরে ঘুরেফিরে তাকান। একটা গান গুনগুন করতে পারেন এই সময়ে। আসলে এইসব মুহুর্তে নিজের মস্তিষ্ক কে প্রমান করে দিতে হয় যে ভয়ের কোন কিছুই নেই। মস্তিষ্ক যখনই সংবাদ পাবে যে সে অমুলক ভয় পাচ্ছে তখনই সে নিজেকে পরিবর্তিত করে ভিন্ন দিকে প্রবাহিত করা চেষ্টা করবে। ভয় পাওয়ার সাথে সাথেই একে বিনাশ করে দেয়া উচিত নাহলে সেই ভয় মন কে গ্রাস করে ভিন্ন ভিন্ন সময়ে চালিত করতে পারে। এটা কোন মানসিক সমস্যা নয়। খুবই স্বাভাবিক সমস্যা। বরং কেউ যদি ভয় না পায় সেটাই হবে তার মানসিক সমস্যা বা অস্বাভাবিক একটা ব্যাপার।

Related Post