শীতের রাতে মশার জ্বালায় প্রায় সকলেই অতীষ্ট হচ্ছেন। সিটি করপোরেশন তো রাস্তা-ঘাট, বাসাবাড়ির ভেতরে পর্যন্ত ওষুধ স্প্রে করেও কুল কিনারা পাচ্ছে না। মশার হাত থেকে বাঁচার একটি সাধারণ ব্যবস্থা হিসেবে আমরা নিজের গালে, হাতে, মুখে চাপড় মারি কিন্তু মশা তার আগেই চম্পট দেয়। তবে আমরা যদি সব সময় হাত দিয়ে মশা তাড়াই, তাহলে মশারাও কিন্তু হাল ছেড়ে দেয়। যে ব্যক্তি বেশি হাত নেড়ে মশা মারার চেষ্টা করেন, মশারাও টের পেয়ে যায় যে তিনি সাংঘাতিক লোক। তাই তাকে এড়িয়ে চলে। আমরা যেমন বিপদ এড়িয়ে চলি, মশারাও তেমনি বুঝতে পারে কার গায়ে হুল ফোটানো নিরাপদ। মশার আচরণ নিয়ে পরিচালিত এক গবেষণায় দেখা গেছে, যারা হাত দিয়ে অনবরত মশা মারার চেষ্টা করেন, তাদের গায়ের গন্ধ ও অন্যান্য খুঁটিনাটি বিষয়ে মশারা মাত্র ১৫ মিনিটেই বুঝে যায়। তখন আর তাদের গায়ে হুল ফোটানোর চেষ্টা করে না। বেশি বেশি কার্বন-ডাই-অক্সাইড নিঃসরণ মশাকে আকৃষ্ট করে। অন্তঃসত্ত্বা নারীরা বেশি কার্বন-ডাই-অক্সাইড নিঃসরণ ঘটান, তাই মশারা তাদের কামড়াতে বেশি আগ্রহী।

মশার কামড়ে ম্যালেরিয়া থেকে চিকুনগুনিয়া, জিকা ভাইরাস কত বিপদজনক অসুখ-বিসুখই না হয়! তাই মশা গায়ে বসলেই চাপড় লাগান। তখন মশারা ওই মানুষটার গায়ের গন্ধ, শরীরের তাপমাত্রা, ঘামের গন্ধ প্রভৃতি চিনে রাখবে। সহজে আর ওদিকে যাবে না। আপনি মশার উপদ্রব থেকে বাঁচবেন। কিন্তু মানুষের শরীরের গন্ধে প্রায় ২০০ ধরনের রাসায়নিক পদার্থের উপাদান রয়েছে। এত বিশাল উপাদানের সংমিশ্রণ মশারা মনে রাখে কীভাবে? এ বিষয়ে পরিষ্কার কিছু জানা যায়নি। তবে গবেষকেরা মনে করেন, এখানে ডোপামিন একটি বড় ভূমিকা পালন করে। এই রাসায়নিক উপাদানটি মানুষ, মৌমাছি ও অন্যান্য পোকামাকড়কে নতুন কিছু শিখতে মস্তিষ্ককে উজ্জীবিত করে। তাই হাত দিয়ে নির্বিচারে মশা মারুন বা মারার চেষ্টা করুন। কয়েক মিনিটেই মশা আপনাকে ছেড়ে অন্য কাউকে হুল ফুটানোর জন্য চলে যাবে। ঘরোয়া উপায়েও মশা তাড়ানোর ব্যবস্থা রয়েছে। এমন কিছু সম্পর্কে আসুন জেনে নেই।

নিম তেল- মশার কামড় থেকে রেহাই পেতে শরীরে নিম তেল লাগাতে পারেন। এছাড়া নিমপাতা ঘরে রেখে দিতে পারেন, মশার উপদ্রব কমবে।
রসুন- দুই থেকে তিনটি রসুনের কোয়া থেঁতলে পানিতে সেদ্ধ করে নিন। এবার পানি সারা ঘরে স্প্রে করে দিন। দেখবেন মশা কমে যাবে।
লেবু- লেবু কাটার পর কাটা অংশে লবঙ্গ গেঁথে নিয়ে লেবুর টুকরোগুলো একটি প্লেটে রেখে ঘরের কোণায় রেখে দিন। দেখবেন কিছুক্ষণের মধ্যেই ঘর থেকে মশা উধাও।
সুগন্ধি- রাতে ঘুমাতে যাওয়ার আগে শরীরে আতর, সুগন্ধি, কিংবা লোশন মাখতে পারেন। সুগন্ধি ব্যবহারে মশা কামড়াবে না।
তুলসি গাছ- তুলসি গাছ মশা তাড়াতে ব্যবহার করতে পারেন। ঘরের টবে কয়েকটি তুলসী গাছ লাগিয়ে রাখুন, মশা পালাবে।

Related Post