ব্যাগ খুলেই হতবাক- গোপন সংবাদের ভিত্তিতে ট্রেনে তল্লাশি চালান পুলিশ। একটি সন্দেহজনক ব্যাগ খুলেই পাওয়া গেল ১০৭টি বিষধর সাপ। তা দেখেই হতভম্ব পুলিশ।
শনিবার ঘটনাটি ঘটেছে ভারতের মালদহ স্টেশনের ১ নম্বর প্লাটফর্মে ডাউন কাঞ্চনজঙ্ঘা এক্সপ্রেসে। স্থানীয় সংবাদ মাধ্যম জানায়, কাঞ্চনজঙ্ঘা এক্সপ্রেসটি প্লাটফর্মে প্রবেশ করলে তল্লাশি শুরু করেন পুলিশ। তখনই একটি সন্দেহজনক বড় ব্যাগ চোখে পড়ে তাদের।
ব্যাগ খুলে দেখা যায়, ভেতরে ছোট ছোট পুঁটলি ও কৌটোয় রয়েছে প্রচুর সাপ৷খবর দেয়া হয় বন কর্মকর্তাদের। তারা এসে সাপগুলো উদ্ধার করে নিয়ে যায়। উদ্ধারকৃত সাপের মধ্যে রয়েছে লাউডগা, কিং কোবরা, ইন্ডিয়ান কোবরা ও পাহাড়ি চিতি৷ সাপগুলোর বাজারমূল্য প্রায় কয়েক লাখ টাকা।

দীর্ঘ প্রতীক্ষার পর ‘স্মার্ট কার্ড’ পাবেন প্রবাসীরা:::::::::
দীর্ঘ প্রতীক্ষার পর অবশেষে প্রবাসীদের ভোটার করার কার্যক্রম শুরু করতে যাচ্ছে নির্বাচন কমিশন (ইসি)। সিঙ্গাপুর থেকে এ কার্যক্রম শুরু করার প্রাথমিক সিদ্ধান্ত চূড়ান্ত করেছে তারা। এর অংশ হিসেবে আগামী মাসের মধ্যভাগে একটি কারিগরি টিম সিঙ্গাপুর সফর করবে। এরপর এপ্রিল থেকে পরীক্ষামূলকভাবে (পাইলটিং) প্রবাসীদের ভোটার তালিকায় অন্তর্ভূক্ত করে তাদের জাতীয় পরিচয়পত্র ‘স্মার্ট কার্ড’ বিতরণ কার্যক্রম শুরু করা হবে। ইসির জাতীয় পরিচয় নিবন্ধন অনুবিভাগ সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।
সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা যায়, ফেব্রুয়ারির মাঝামাঝি উচ্চপর্যায়ের একটি প্রতিনিধি দল সিঙ্গাপুরে যাবে। এ দলটি সিঙ্গাপুরে গভার্নমেন্ট টু গভার্নমেন্ট আলোচনা করবে। দেশটির পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সেখানকার বাংলাদেশ দূতাবাস ও স্টেকহোল্ডার সবার সঙ্গে কথা বলবে। এরপর প্রবাসী বাংলাদেশিদের রেজিস্ট্রেশন কীভাবে করা যায়, কোথায় নিবন্ধন সেন্টার হবে, কেমন জনবল প্রয়োজন হবে, পদ্ধতিগত কোন ধরনের জটিলতা আসতে পারে- এরকম সকল কিছু বিবেচনায় নিয়ে তারা একটি প্রতিবেদন দেবে। এ প্রতিবেদনের ভিত্তিতে কর্মকৌশল নির্ধারণ করে আগামী এপ্রিল থেকেই ইসি সিঙ্গাপুর থেকে প্রবাসীদের ভোটার করা ও তাদের স্মার্টকার্ড বিতরণ কার্যক্রম করার পরিকল্পনা করছে।

সিঙ্গাপুরের পাইলট প্রকল্প সফল হলে পর্যায়ক্রমে সংযুক্ত আরব আমিরাত, কাতার, বাহরাইন, সৌদি আরবসহ অন্যান্য দেশে অবস্থানরত বাংলাদেশিদেরও জাতীয় পরিচয়পত্র দেয়ার কর্মপরিকল্পনা নেয়া হবে। প্রথম ধাপে সিঙ্গাপুর ও পরে দুবাইয়ে এ কার্যক্রম শেষ হওয়ার পর পরবর্তী ধাপে অন্যান্য দেশে অবস্থানরত প্রবাসী বাংলাদেশিদের ভোটার করা ও স্মার্টকার্ড দেয়ার কার্যক্রম হাতে নেয়া হবে। এ বিষয়ে নির্বাচন কমিশন সচিব হেলালুদ্দীন আহমদ বলেন, প্রবাসীদের ভোটার করার উদ্যোগ ইসির বেশ আগে থেকেই ছিল। যেহেতু সংসদ নির্বাচন ছিল তাই আমরা সেই কার্যক্রমটি স্থগিত রেখেছিলাম। নির্বাচন শেষ হয়েছে, তাই প্রবাসীদের ভোটার করার কার্যক্রমটি এগিয়ে নেয়ার উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়েছে।

ইসি সচিব বলেন, সিঙ্গাপুর যেহেতু আমাদের কাছের দেশ, সেখানে আমাদের প্রায় লক্ষাধিক প্রবাসী রয়েছেন। এজন্য ‘পাইলট প্রজেক্ট’ হিসেবে সিঙ্গাপুর প্রবাসীদের ভোটার করার নীতিগত সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। এর অংশ হিসেবে ইসির একটি টিম ফেব্রুয়ারির মাঝামাঝি সিঙ্গাপুরে যাবে। প্রতিনিধি দলটি ওখানে বিভিন্ন স্টেকহোল্ডারদের সঙ্গে কথা বলবেন। বিশেষ করে বাংলাদেশি অ্যাম্বাসি, ফরেন মিনিস্ট্রি, লেবার উইং, ইমিগ্রেশন ডিপার্টমেন্ট এবং বাংলাদেশি কমিউনিটির নেতৃবৃন্দের সঙ্গে মতবিনিময় ও সেমিনার করবেন। সংশ্লিষ্ট সবার মতামতের উপর ভিত্তি করে কারিগরি টিম প্রতিবেদন দেবে। এর ভিত্তিতে আশা করছি এপ্রিল থেকেই আমরা সিঙ্গাপুরের কার্যক্রম শুরু করতে পারব। এটি সফলভাবে সম্পন্ন হলে দ্বিতীয় দফায় দুবাইয়ে কার্যক্রম শুরু হবে। ইসির জাতীয় পরিচয় নিবন্ধন অনুবিভাগ সূত্রে জানা যায়, বিশ্বের ১৫৭টি দেশে প্রায় এক কোটির উপরে প্রবাসী বাংলাদেশি রয়েছেন। এর মধ্যে জনবহুল ৩টি দেশ অর্থাৎ সৌদি আরব, সংযুক্ত আরব আমিরাত ও মালয়েশিয়ায় দ্বিতীয় ধাপের ভোটার করার পরিকল্পনা করা হয়েছে। প্রথমধাপে সিঙ্গাপুর, দুবাই, কাতার, বাহরাইনের প্রবাসীদের ভোটার করার পরিকল্পনা হাতে নেয়া হয়েছে।প্রসঙ্গত, ১৯৯৮ সালে দেশের উচ্চ আদালত প্রবাসী বাংলাদেশিদের ভোটাধিকার সংবিধান স্বীকৃত বলে ঘোষণা দেয়। এরপর ২০০৮ সালে প্রথমবারের মত ছবিসহ ভোটার তালিকা প্রণয়ন ও নাগরিকদের জাতীয় পরিচয়পত্র দেয়ার প্রক্রিয়া শুরু করে ড. এটিএম শামসুল হুদার কমিশন। পাশাপাশি ড. হুদা কমিশন প্রবাসীদেরও ভোটার করার উদ্যোগ গ্রহণ করে। এর অংশ হিসেবে তখন দুই নির্বাচন কমিশনার মুহাম্মদ ছহুল হোসাইন ও ব্রিগেডিয়ার জেনারেল (অব.) এম সাখাওয়াত হোসেন বিদেশ সফর করেন। এরপর কেটে যায় আরও ১০ বছর। পরে গত বছর কে এম নূরুল হুদা কমিশন প্রবাসীদের ভোটার করার উদ্যোগটি পুনরায় সামনে আনে। এরই অংশ হিসেবে ওই বছরই একটি আন্তর্জাতিক সম্মেলনের আয়োজন করে ইসি। এখন সেই ধারাবাহিকতায় প্রবাসীদের ভোটার করার পাইলটিং হতে যাচ্ছে সিঙ্গাপুরে।

যে দলের সমর্থনে নায়িকাদের নিয়ে গ্যালারিতে হিরো আলম:
বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগের (বিপিএল)-এ আজ দিনের প্রথম ম্যাচে আজ মুখোমুখি হয়েছিলো রংপুর রাইডার্স-রাজশাহী কিংস। বাংলাদেশ সময় দেড়টায় অনুষ্ঠিত এই ম্যাচে মুখোমুখি হয়েছে এই দুইদল। আর এই ম্যাচে প্রিয় দলের সমর্থনে গ্যালারিতে ছিলেন হিরো আলম।

এদিকে রাজশাহীর দেওয়া ১৩৬ রানের টার্গেটে ৫ রানে হেরে যাই রংপুর।মাশরাফির দল রংপুর রাইদার্সের খেলা দেখতে পুরো সময় গ্যালারিতে ছিলেন হিরো আলম। দারুণ ক্রিকেটপ্রমী হিরো আলম। সুযোগ পেলেই স্টেডিয়ামে ছুটে যান তিনি। রাজশাহী কিংসের বিপক্ষে আজ মাঠে নেমেছিলো হিরো আলমের প্রিয় দল রংপুর। এ প্রসঙ্গে হিরো আলম বলেন, ‘আমি উত্তরবঙ্গের ছেলে। নিজের মাটিকে ভালোবাসি। তাই রংপুর রাইডার্স আমার পছন্দের দল। গতবারও তাদের খেলা দেখতে স্টেডিয়ামে ছিলাম। এবারও আছি। ভবিষ্যতেও থাকবো। আমি চাই দলটি জিতে যাক।’তিনি আরো বলেন, ‘গতবারের মতো এবারও চ্যাম্পিয়ন হয়ে ঘরে ফিরবো আশা রাখি। খেলা দেখতে খুব ভালো লাগে। প্রিয় দলের খেলা হলেই আমি স্টেডিয়ামে এসে দেখার চেষ্টা করি। আগামী খেলাগুলোও দেখবো ইনশাল্লাহ।

Related Post

Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •