১৪ ফেব্রুয়ারি বিশ্ব ভালোবাসা দিবস বা ভ্যালেন্টাইন ডে’কে সিস্টার্স ডে হিসেবে পালনের ঘোষণা দিয়েছে পাকিস্তানের একটি বিশ্ববিদ্যালয়। দিনটিতে তারা ছাত্রীদের মাঝে হিজাব বিতরণের সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

খালিজ টাইমসের খবরে বলা হয়, পাকিস্তানের পাঞ্জাব প্রদেশের ইউনিভার্সিটি অব অ্যাগ্রিকালচার ইন ফয়সালাবাদ (ইউএএফ) এমন সিদ্ধান্তের কথা জানিয়েছে। বিশ্ববিদ্যালয়টি বলছে, পশ্চিমা সংস্কৃতি থেকে ফিরিয়ে তরুণদের ইসলামি সংস্কৃতি লালনে অভ্যস্ত করতেই তাদের এমন উদ্যোগ।

ইউএএফ’র ভাইস চ্যান্সেলর (ভিসি) জাফর ইকবাল বিশ্ববিদ্যালয়ের ওয়েবসাইটে একটি বিবৃতি প্রকাশ করেছেন। সেখানে তিনি বলেছেন, ‘আমাদের (ইসলামি) সংস্কৃতিতে নারীদের অনেক সম্মান ও ক্ষমতা দেয়া হয়েছে। বিশেষ করে নারীকে বোন, মা, মেয়ে এবং স্ত্রী হিসেবে অনেক সম্মান ও শ্রদ্ধা করা হয়।’
তিনি আরও বলেন, আমরা নিজেদের সংস্কৃতিকে ভুলে যাচ্ছি। আর আমদানি করছি পশ্চিমা সংস্কৃতি। যার কারণে সমাজে অশান্তি ও বিশৃঙ্খলা বিরাজ করছে।
ওয়েবসাইটে প্রকাশিত বিবৃতিতে বলা হয়, ইউএএফ ১৪ ফেব্রুয়ারিতে বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রীদের মাঝে স্কার্ফ, শাল এবং গাউন বিতরণ করবে।
গতকাল সোমবার বিশ্ববিদ্যালয়ের মুখপাত্র কামার বুখারি বার্তাসংস্থা এএফপিকে জানান, বিশ্ববিদ্যালয়ের ১০০০ ছাত্রীর মাঝে স্কার্ফ বিতরণ করবে ইউএএফ কর্তৃপক্ষ।
তিনি বলেন, ‘নারীদের প্রতি সম্মান দেখিয়ে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ ছাত্রীদের মাঝে এসব বিতরণ করবে। সেখানে কোনো ছাত্র উপস্থিত থাকবে না। ছাত্রদের জন্য আলাদা আলোচনা অনুষ্ঠানসহ বিভিন্ন আয়োজন থাকবে।’

খবরে বলা হয়, পাকিস্তানে দিন দিন ভ্যালেন্টাইন ডে জনপ্রিয় হয়ে উঠছে। দিনটিতে পাকিস্তানী ছেলেমেয়েরা তাদের ভালোবাসার মানুষকে দই, চকোলেটসহ বিভিন্ন ধরণের উপহার সামগ্রী দিয়ে থাকে।
কিন্তু পাকিস্তান রাষ্ট্রীয়ভাবে ইসলামি সংস্কৃতি লালন করে। যেখানে বিয়ের আগে ছেলে-মেয়েদের অবাধ মেলামেশা সম্পূর্ণ নিষিদ্ধ। এছাড়া ২০১৭ সালে ইসলামাবাদের একটি আদালত উন্মুক্ত স্থানে ভ্যালেন্টাইন ডে’র আয়োজন নিষিদ্ধ ঘোষণা করে।
সূত্রঃ 24livenewspaper.com

Related Post

Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •