ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে দুই ছাত্রীকে যৌন হয়রানির অভিযোগে এক বহিরাগত মাইক্রোবাস চালককে আটক করা হয়েছে। শনিবার বিকালে বিশ্ববিদ্যালয়ের রোকেয়া হলের সামনে থেকে শিক্ষার্থীরা তাকে গাড়িসহ পুলিশে দেয়।

আটক চালক হল আবদুল করিম। তিনি ঢাকা পাওয়ার ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানি লিমিটেডে চুক্তিভিত্তিক গাড়ি চালান বলে জানা গেছে। যৌন নিপীড়ক এ চালকের গ্রামের বাড়ি বরিশালের মুলাদী উপজেলার হোসনাবাদে। ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শী নাট্যকলা বিভাগের মাস্টার্সের শিক্ষার্থী মো. তানভীর হাসান সৈকত বলেন, ওই ড্রাইভার গাড়ির মধ্যে নগ্ন অবস্থায় আপত্তিকর কাজে লিপ্ত ছিল। সে বিশ্ববিদ্যালয়ের দুই ছাত্রীকে গাড়ির মধ্য থেকে ডাকতে থাকে। তখন ওই ছাত্রীরা পা থেকে জুতা খুলে ড্রাইভারকে দেখায়। বিষয়টি দেখে বিশ্ববিদ্যালয়ের অনেক শিক্ষার্থী জড়ো হয়ে যায়।

তখন ওই ড্রাইভার দ্রুত গাড়ি চালিয়ে সটকে পড়ার চেষ্টা করে। এ সময় আমরা তার গতিরোধ করি এবং প্রক্টোরিয়াল টিমের মাধ্যমে পুলিশে তুলে দেই। বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর অধ্যাপক ড. একেএম গোলাম রব্বানী বলেন, বর্তমানে ওই চালক ও গাড়িটি শাহবাগ থানায় আছে। পুলিশ তার বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা নেবে। নীলক্ষেত পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ সাহেব আলী ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

আমাদের মানবিক অবক্ষয়ের পরিণতি সরূপ মস্তিষ্ক বিক্রিত মানুষগুলোর একটি উদাহরণ।

আমাদের মানবিক অবক্ষয়ের পরিণতি সরূপ মস্তিষ্ক বিক্রিত মানুষগুলোর একটি উদাহরণ।যেখানে বস্তুবাদী সমাজে নারীরা বস্তুর ন্যায়। আজ টিএসসি থেকে হলে যাওয়ার পথে রোকেয়া হলের পাশে গুরুদুয়ারার অপর পাশে দেখি একটি মেয়ে সেন্ডেল উঠিয়ে একটি গাড়ির দিকে দেখাচ্ছে আর গাড়ির ড্রাইভার জোরে গাড়ি টেনে চলে যাচ্ছে। রাস্তার উপরে আরো কিছু মেয়ে দাড়িয়ে। সমস্যা বুঝতে পেরে গাড়িটা থামিয়ে ড্রাইভারকে নামালাম। তারপর যেটা জানতে পারি সেটা কখনো কল্পনাও করতে পারিনি।রোকেয়া হলের সামনে গাড়ি রেখে মেয়েদেরকে দেখে দেখে উলঙ্গ হয়ে মাস্টারবেশন করছেন। আমরা যখন জানতে পারি সে একটা বাচ্চামেয়েকে স্কুলে নেওয়া আনা করে তখন তার মালিককে জানানোর জন্য গাড়ির মালিক কে ফোন দিতে বলি এবং মহিলা তাড়াতাড়ি গাড়ির নিকট আসে এবং মেয়েদেরকে পুরো ঘটনা বলতে বলি তখন তিনি বলেন মেয়েরা যে এটা সত্য বলছে এর প্রমান কি? ভাবতেও অবাক লাগে আমাদের সমাজে এদের মত কিছু কীট আমাদের সমাজে রয়েই গেছে।মেয়েটিকে ধন্যবাদ পুরোটা সময় আপনি প্রতিবাদ করেছেন এবং পুলিশের দেওয়ার জন্য সহযোগিতাও করেছেন। সুত্র,Tanbir Hasan Shaikat vai

Posted by Radiokothabd.com on Sunday, January 27, 2019

Related Post

Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •