কাতলা মাছটির ওজন প্রায় ৬০ কেজি। বিক্রেতা আব্দুর রহমান শরীর নিয়ে সেটি একটু তুলতেও কষ্ট হচ্ছিল। বিশাল এই মাছটি দেখে অনেকে তুলছেন ছবি।আনুমানিক ১০ থেকে ১২ বছর বয়সের এই মাছটির দাম হাঁকা হচ্ছে এক লাখ ২০ হাজার টাকা! তবে দরদাম করলে আরেকটু কমিয়ে দিয়ে মাছটি ছেড়ে দিবেন বিক্রেতা।রোববার সন্ধ্যায় মৌলভীবাজার সদর উপজেলায় ঐতিহ্যবাহী মাছ মেলায় এ মাছটি তোলা হয়েছে। এই কাতলার পাশাপাশি বেশ কয়েকটি বড় সাইজের চিতল, রুই, আইড় এবং বাঘ মাছ নিয়ে এসেছেন তিনি।

সিলেট বিভাগের মিলনস্থল জেলার সদর উপজেলার শেরপুরে চলছে দুশ বছরের ঐতিহ্যবাহী মাছের মেলা। প্রতি বছরের ন্যায় এবারও পৌষসংক্রান্তির দিন থেকে মেলাটি শুরু হয়। সেখানেই ৬০ কেজি ওজনের কাতলা মাছটি দেখা যায়।জানা যায়, মেলায় দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে মাছ ব্যবসায়ীরা বড় বড় মাছ নিয়ে এসেছেন। দুই শতাধিক মাছের দোকান এবং প্রায় ৩০টি মাছের আড়ত বসেছে।মৎস্য ব্যবসয়ী আবদুর রহমান জানান, দক্ষিণ এশিয়ার বৃহত্তম হাকালুকি হাওর থেকে মেলায় বিক্রি করার জন্য ১৫ লাখ টাকার মাছ কিনে এনেছি। এর মধ্যে রয়েছে বড় বড় চিতল, রুই, আইড় এবং বাগাড় মাছসহ নানা প্রজাতির মাছ।

এ ছাড়া মেলায় সিলেট অঞ্চলের বিভিন্ন হাওর ও বিলের বড় বড় দেশিও প্রজাতির শোল, গজার, বোয়াল, চিতল, বাগাড়, আইড়সহ নানা প্রজাতির মাছ তোলা হয়েছে। মেলা থেকে মাছ কিনার জন্য দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে মানুষ আসেন।মেলা কমিটির সভাপতি ওলিউর রহমান জানান, উত্তরবঙ্গসহ এই মেলায় দেশের বিভিন্ন স্থান থেকে বড় বড় কাতল, রুই, আইড়, বোয়ালসহ বিভিন্ন জাত-প্রজাতির মাছ আসে। প্রতি বছর ১৬ থেকে ১৭ কোটি টাকার মাছ ক্রয়-বিক্রিয় হয় এ মেলায়।মেলাটি হিন্দু ধর্মাবলম্বীদের উৎসব হলেও এটি এখন সার্বজনীন উৎসবে পরিণত হয়েছে বলেও জানান ওলিউর রহমান।

Related Post

Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •